রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নীলগাইয়ের ভ্যালেন্টাইন উপহার

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৫২ পিএম

চার মাস অপরিচিত পরিবেশে একাকী থাকার পর বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের আগেই ‘ভ্যালেন্টাইন’ উপহার পেয়েছে রামসাগর জাতীয় উদ্যানের মেয়ে নীলগাইটি। গতকাল শনিবার এ উদ্যানে রাজশাহী থেকে আসে যুবরাজ। নিজের ডেরায় স্বজাতির যুবরাজকে দেখে এতদিন মনমরা থাকা নীলগাই আনন্দে দিগি¦দিক ছুটোছুটি শুরু করে দেয়।বাংলাদেশে বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণী নীলগাই দুটি গতকাল শনিবার থেকে ‘সংসার’ শুরু করেছে দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যানে। তাদের জন্য উদ্যানে আগে থেকে বিশেষ প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়। আলাদা বেষ্টনী তৈরী করা হয় বিশেষ অতিথিদের জন্য।দিনাজপুরে গতকালের মেঘলা আকাশকে উপেক্ষা করে নীলগাই দুটিকে দেখতে দলে দলে আসেন দর্শনার্থীরা। এরই মধ্যে বন্যপ্রাণী নীলগাইয়ের বংশধর বৃদ্ধির কথা ভাবছে বন বিভাগ।

দিনাজপুর বন বিভাগের কর্মকর্তা ও রামসাগর জাতীয় উদ্যানের তত্ত্বাবধায়ক আবদুস সালাম তুহিন বলেন, রামসাগর জাতীয় উদ্যানে শাবক জন্মদানে সক্ষম নারী নীলগাইটি রাখার পর এর বংশবিস্তারের জন্য সন্ধান করা হচ্ছিল পুরুষ নীলগাইয়ের। আমরা ভাগ্যক্রমে একটি পুরুষ নীলগাইয়ের সন্ধান পেয়েছি।

গত ২২ জানুয়ারি নওগাঁর মান্দা উপজেলা থেকে উদ্ধার হওয়া পুরুষ নীলগাইটিকে রাজশাহী বন্যপ্রাণী ও পরিচর্যা কেন্দ্রে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাকৃতিক পরিবেশে তার লালন পালন ও পরিচর্যা করার পর সুস্থ ও স্বাভাবিক হয়। বন বিভাগ পরে দিনাজপুর রামসাগর জাতীয় উদ্যানে আগের একটি মেয়ে নীলগাই একা থাকার কারণে যুবরাজ নামের পুরুষ নীলগাইটিকে রামসাগর জাতীয় উদ্যানে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে গত শুক্রবার রাতে যুবরাজকে রামসাগর জাতীয় উদ্যানে এনে সকালে একই ডেরায় ছাড়া হয়।রামসাগর বন কর্মকর্তা তুহিন আরও বলেন, রামসাগর জাতীয় উদ্যানে অনুকূল পরিবেশ থাকায় আশা করছি এবার বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণীটির বংশবিস্তার সম্ভব হবে।এর আগে গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার সীমান্তে কুলীক নদীর ধারে নারী একটি নীলগাই উদ্ধার করে এলাকাবাসী। উদ্ধারের পর প্রাণীটিকে দিনাজপুর বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করলে সেটিকে রামসাগর জাতীয় উদ্যানে রাখা হয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত