রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুন

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:২২ এএম

রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীনকে (৬০) হত্যা করা হয়েছে। গতকাল রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মিরপুর রোডের সুকন্যা টাওয়ারের ১৭ তলার বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে নিউমার্কেট থানা পুলিশ। ঘটনার পর থেকে নিহতের বাসার দুই গৃহকর্মী নিখোঁজ রয়েছে। ওই দুজন তাকে হত্যা করে দামি জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে গেছে বলে নিহতের স্বামী ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামার অভিযোগ।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রমনা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল্লাহিল কাফি দেশ রূপান্তরকে বলেন, বাসার দুই গৃহকর্মী স্বপ্না (৩৫) ও রেশমা (৩৪) তাকে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ বিভিন্ন আলামত, হাতের ছাপ ও চাপা দেওয়ার কাজে ব্যবহৃত বালিশ উদ্ধার করেছে। সেগুলো ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হবে। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরেক নারী গৃহকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

ইসমত কাদির গামা দেশ রূপান্তরকে বলেন, ওই ভবনের ১৬/সি ফ্ল্যাটে তারা স্বামী-স্ত্রী দুজন থাকতেন। তাদের সঙ্গে থাকতেন তিন গৃহকর্মী। রবিবার সকাল ১০টায় তিনি বাসা থেকে বের হন। সন্ধ্যা ৭টায় বাসায় ফিরে ডাকাডাকি করছিলেন, কেউ দরজা খুলছিল না। বৃদ্ধা গৃহকর্মী দরজা খুলে দিয়ে বলেন, রেশমা ও স্বপ্নাকে তিনি দেখেননি এবং ম্যাডামকেও দেখছেন না। পরে তিনি শয়নকক্ষে গিয়ে স্ত্রীর নিথর দেহ বালিশ ও কম্বল চাপা দেওয়া অবস্থায় পান। বালিশ সরিয়ে স্ত্রীকে অজ্ঞান পেয়ে পুলিশকে খবর দেন।

তিনি বলেন, এক মাস আগে একটি এজেন্সির মাধ্যমে রেশমা ও স্বপ্নাকে গৃহকর্মী হিসেবে নিয়োগ দেন। এর মধ্যে রেশমার বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে, স্বপ্নার বাড়ি কিশোরগঞ্জে। বাসা থেকে তারা স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকা ও কিছু দামি কাপড় নিয়ে গেছে। বাসায় অনেক টাকা ছিল। কী পরিমাণ নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার তারা নিয়েছেÑ সেটা এই মুহূর্তে বলতে পারব না। গামা জানান, তার স্ত্রী ২০১০ সালে ইডেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন। তাদের দুই ছেলে আছে।

ওই ভবনের নিরাপত্তাকর্মী আজাদ জানান, দুই গৃহকর্মীকে তিনি দ্রুত বের হয়ে যেতে দেখেছেন। বাসার সিসি ক্যামেরা ফুটেজে দেখা গেছে, বিকেল ৫টা ৬ মিনিটের সময় গৃহকর্মী স্বপ্না ও রেশমা কাঁধে ভ্যানিটি ব্যাগ নিয়ে বের হয়ে যাচ্ছে। পাশের ১৬/বি ফ্ল্যাটের বাসিন্দা জানান, সন্ধ্যা ৭টার দিকে গামা সাহেবের বাসার বৃদ্ধা গৃহকর্মী তার বাসার দরজা নক করে বলেন, তিনি ঘুম থেকে উঠে দুই গৃহকর্মী বা ম্যাডামকে (পারভীন) দেখছেন না। কিছুক্ষণ পর গামা সাহেব বাসায় আসেন।

এদিকে রবিবার রাত ৮টার দিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কুতুবখালী এলাকার বাসা থেকে সালমা (৩৮) নামে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। একই বাসা থেকে রাবেয়া নামে এক নারীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ হেফাজতে তার চিকিৎসা চলছে।

যাত্রাবাড়ী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আয়ান মাহমুদ দীপ জানান, শনিবার রাতের কোনো একসময় এই হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। নিহত নারীর মাথা থেঁতলানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের সময় আহত অবস্থায় রাবেয়াকে বাসায় পাওয়া যায়। বাইরে থেকে দরজায় তালা দেওয়া ছিল। তার কাছ থেকে সঠিক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। গৃহকর্তা কালাম পলাতক রয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, উত্তর কুতুবখালীর ২২/বি নম্বর পাঁচতলা বাড়ির চতুর্থ তলার একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকেন কালাম। তার দুই স্ত্রী থাকে গ্রামের বাড়ি। ওই ফ্ল্যাটে কালামের সঙ্গে থাকতেন সালমা ও রাবেয়া। সালমা ওই বাসায় গৃহকর্মী ছিলেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত