শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বেতন বৃদ্ধির দাবি

গাজীপুর-সীতাকুণ্ডে শ্রমিক বিক্ষোভ

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:১৪ এএম

বেতন-ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে গতকাল রবিবার সকালে গাজীপুরে প্রায় এক ঘণ্টা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে দ্বিতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ করেছে ইভিন্স টেক্সটাইলস লিমিটেড কারখানার শ্রমিকরা। একই দাবিতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের কুমিরায় সকালে কর্মবিরতি দিয়ে পিএইচপি কারখানার গেইটে মিছিল-সমাবেশ করেছে শ্রমিকরা। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

গাজীপুর প্রতিনিধি : গতকাল সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাঘেরবাজার এলাকায় ইভিন্স টেক্সটাইলসের শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করে।  এক পর্যায়ে তারা পাশের ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে।  জয়দেবপুর থানার পরিদর্শক মো. আলী জিন্নাহ ও হোতাপাড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম জানান, কর্র্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে প্রায় এক ঘণ্টা পর শ্রমিকদের কারখানা চত্বরে সরিয়ে নেওয়া হয়। এরপর মহাসড়কে আবারও যান চলাচল শুরু হয়।

কারখানার অপারেটর শাহ জামাল জানান, কর্র্তৃপক্ষ হেলপারদের ন্যূনতম বেতন ৮ হাজার ৩০০ টাকা ঘোষণা করলেও তা দিচ্ছে না। এছাড়া হাজিরা বোনাস ও নাইট বিল বৃদ্ধি, সরকারি ও বার্ষিক অর্জিত ছুটি প্রদান, টিফিন বিল এবং প্রতি মাসের বেতন পরবর্তী মাসের ১-২ তারিখে প্রদানের দাবি জানালেও তারা রাজি হয়নি। দাবি আদায়ে গত শনিবারও তারা কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ করে। 

কারখানার মহাব্যবস্থাপক মো. জিহাদুল ইসলাম বলেন, ‘টেক্সটাইল শ্রমিকের জন্য নির্ধারিত বেতন ৬ হাজার ৩৫৪ টাকা দেওয়া হলেও গার্মেন্ট শ্রমিকদের মতো ন্যূনতম বেতন দাবি করছে শ্রমিকরা। একই সঙ্গে নানা দাবি জানিয়ে তারা আন্দোলন শুরু করছে। তবে বিষয়টি আলোচনা করে মীমাংসার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : গতকাল সকাল ৯টার দিকে কর্মবিরতি দিয়ে পিএইচপি কারখানার গেইটে শ্রমিকরা মিছিল-সমাবেশ শুরু করে। শ্রমিকরা জানান, জীবনযাপনের খরচ বাড়ায় কর্র্তৃপক্ষকে বেতন-ভাতা বৃদ্ধির বিষয়টি জানানো হলেও কোনো ফল হয়নি। বরং প্রতিবাদকারীদের চাকরিচ্যুত করে তারা আন্দোলন বন্ধ করতে চেয়েছিল। সেজন্য তাদের আন্দোলনের পথ বেছে নিতে হয়েছে। দাবি মেনে না নিলে আর কাজে ফিরবে না বলে জানায় তারা।

শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক আবদুল হাই খান বলেন, ‘সকাল থেকে বেতন বৃদ্ধিতে শ্রমিকরা আন্দোলন করলেও কোম্পানি কর্র্তৃপক্ষ দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে তারা পুনরায় কর্মে যোগদান করেছে।’ সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি মো. দেলওয়ার হোসেন জানান, ঘটনার পর পরই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করায় কোনো বিশৃঙ্খলা হয়নি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত