বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আবাহনীর ত্রাতা জীবন

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:০৪ এএম

হোম ভেন্যু ময়মনসিংহে ভয়ংকর আরামবাগকে একাই হারিয়ে দিলেন আবাহনীর ফরোয়ার্ড নাবিব নেওয়াজ জীবন। গতকাল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা ২-১ গোলে জয় পেয়েছে জীবনের জোড়া গোলের কল্যাণে। দারুণ ফর্মে থাকা এই লোকাল ফরোয়ার্ড রহমতগঞ্জের বিপক্ষে নোয়াখালীতে হ্যাটট্রিক করার পর কাল ময়মনসিংহে দলকে জেতালেন দুর্দান্ত দুটি গোল করে। ঢাকায় দিনের অন্য ম্যাচে সাখাওয়াত হোসেন রনির একমাত্র গোলে ব্রাদার্সকে হারিয়েছে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব।

ষষ্ঠ ম্যাচে পঞ্চম জয় পাওয়া আবাহনী ১৫ পয়েন্ট নিয়ে এখন শীর্ষে। শেষ দুই ম্যাচ হেরে যাওয়া আরামবাগ সমান ম্যাচ থেকে সংগ্রহ করেছে ৯ পয়েন্ট। ম্যাচের ১৪ মিনিটে আবাহনীর কিপার শহিদুল আলম সোহেলের বাজে কিপিংয়ে এগিয়ে যায় স্বাগতিক আরামবাগ। নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড চিনেডু ম্যাথিউর পাস ধরে বক্সের ভেতরে একজনকে কাটিয়ে জোরালো শট নেন লেফট উইঙ্গার আরিফুল ইসলাম। পজিশনে থেকেও বলটা ফিস্ট করে ক্লিয়ার করার বদলে নিজেদের জালে জড়িয়ে দেন সোহেল। এরকম হাস্যকর গোল খাওয়ার রেকর্ড কম নয় সোহেলের। গত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে এরকমই এক গোল খাইয়ে গ্রুপ পর্ব থেকে বাংলাদেশের বিদায় ঘণ্টা বাজিয়ে দিয়েছিলেন এই কিপার। তারপরও আবাহনীর মতো বড় দল কোনো এক অদৃশ্য কারণেই সোহেলে আস্থা রেখে চলছে। তার এমন গোল হজমের পর অবশ্য আবাহনী ম্যাচে ফেরার জোর চেষ্টা চালিয়েছে। সেই চেষ্টারই প্রথম সুফল মিলে যায় ৩২ মিনিটে। আতিকুর রহমান ফাহাদের পাস ধরে ডি-বক্সের ভেতরে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বাঁ পায়ের শটে বল জালে জড়িয়ে দেন জীবন। ৬ মিনিট পর ডি-বক্সের ঠিক ওপর থেকে দুর্দান্ত এক ফ্রিকিকে দৃষ্টিনন্দন গোল করে দলকে এগিয়ে নেন জীবন। দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলের বেশকটি আক্রমণ ব্যর্থ হলে ৩ পয়েন্ট সঙ্গী করে মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে দিনের অন্য ম্যাচে ব্রাদার্সকে হারাতে ভালোই বেগ পেতে হয়েছে গতবারের রানার্সআপ শেখ জামালকে। ম্যাচের শুরুতেই শাখাওয়াত হোসেন রনি গোল করে দলকে তৃতীয় জয়ের স্বাদ দেন। এই জয়ে জামালের সংগ্রহ ছয় ম্যাচে ১০ পয়েন্ট। আর ব্রাদার্স পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই হেরে ধুঁকছে। তাদের ঝুলিতে মোহামেডানকে হারানোর সুবাদে রয়েছে ৩ পয়েন্ট।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পেরেজের শট ব্রাদার্সের কিপার বিপ্লব ভট্টাচার্য ফিস্ট করলে ফিরতি বল জালে জড়িয়ে দেন ফাঁকায় দাঁড়ানো রনি। এই গোলের পরও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখে জামাল। একের পর এক আক্রমণে ব্রাদার্সকে ব্যস্ত রেখেছে দলটি। ১২ মিনিটে রনির ৩০ গজ দূর থেকে জোরালো শট ফিস্ট করে দলকে রক্ষা করেন বিপ্লব। প্রথমার্ধের শেষদিকে গাম্বিয়ান স্ট্রাইকার সলোমন কিংয়ের কর্নারে কিরগিজ ডেভিড ব্রুসের হেড রুখে জামালকে ফের হতাশ করেন বিপ্লব।এই ম্যাচে ব্রাদার্সের ফরোয়ার্ডত্রয়ী সেভাবে ভীতি ছড়াতে পারেননি প্রতিপক্ষের রক্ষণে। তাই তো টানা তৃতীয় হার বরণ করে মাঠ ছাড়তে হয় গোপীবাগের দলটিকে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত