মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জিয়া ঝড়ে ফাইনালে শেখ জামাল

আপডেট : ০১ মার্চ ২০১৯, ০৬:১১ পিএম

নেমেছিলেন সাত নম্বরে। কিন্তু তাতে কী! জিয়াউর রহমান যতটুকু সময় পেলেন তাতেই শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে ছারখার করে বেরিয়ে গেলেন। ২৯ বলে অপরাজিত ৭২ রান করে প্রিমিয়ার ডিভিশন টি-টোয়েন্টি লিগের ফাইনালে নিয়ে গেছেন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে।

শুক্রবার মিরপুরের প্রথম সেমিফাইনালে শাইনপুকুরকে ৫ উইকেটে হারায় শেখ জামাল।

টস জিতে আগে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৮১ রান করে শাইনপুকুর। জবাবে ৫ উইকেট ও ১৪ বল হাতে রেখে জয় তুলে নেয় শেখ জামাল।

শেখ জামালকে ২৯ রানের শুরু এনে দেন ইমতিয়াজ হোসেন এবং ফারদিন হাসান। চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে ব্যক্তিগত ১১ রানের মাথায় রানআউট হন ইমতিয়াজ।

ইমতিয়াজ ফেরার পর তোলগোল পাকিয়ে ফেলে শেখ জামাল। ৬৫ রানে চলে যায় পাঁচ উইকেট! সেখান থেকে অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহানকে নিয়ে চালিয়ে খেলতে থাকেন জিয়া।

জিয়া চারটি চারের সঙ্গে সাতটি বিশাল ছক্কা হাঁকান। ৩১ বলে ৪৩ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন সোহানও। ১১৭ রানের জুটি গড়েন দুজন।

শাইনপুকুরের হয়ে সোহরাওয়ার্দী শুভ দুটি, টিপু সুলতান ও দেলোয়ার হোসেন একটি করে উইকেট নেন।

শাইনপুকুরের হয়ে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১১৩ রান তুলে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দেন সাব্বির হোসেন ও আফিফ হোসেন। ৩২ বলে দুই চার ও তিন ছক্কায় ৪৭ রান করে ইলিয়াস সানির এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন সাব্বির। তবে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন আফিফ। ৪১ বলে সাতটি চার ও তিনটি ছক্কায় ৬৫ রান করেন শাইনপুকুর অধিনায়ক।

এরপর ৫৭ রানের আরেকটি জুটি গড়েন তৌহিদ হৃদয় ও শুভাগত হোম। ১৭ বলে ২৪ রান করেন হৃদয়। শুভাগত করেন ১৭ বলে ৩১। সমান দুটি করে চার ও ছক্কা মারেন তিনি।

২৮ রান খরচায় ৪ উইকেট নিয়ে শেখ জামালের সেরা বোলার সালাহদ্দিন শাকিল। এছাড়া শহিদুল ইসলাম দুটি ও ইলিয়াস সানি একটি উইকেট নেন।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত