শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ঘানায় দাসত্বের কবলে ২০ হাজার শিশু

আপডেট : ০২ মার্চ ২০১৯, ১১:১২ পিএম

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ ঘানার ভোল্টা লেকে প্রায় ২০ হাজার শিশু দাস হিসেবে কাজ করছে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) এক রিপোর্টে এমন অমানবিক পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সিএনএন।

এই শিশুর অধিকাংশকেই তাদের বাবা-মা আর্থিক অনটনের কারণে মানব পাচারকারীদের কাছে বিক্রি করে দেয়। মাত্র আড়াই শ ডলারের বিনিময়ে বিক্রি করে দেওয়া ওই শিশুদের জীবনের আলো জ্বলে ওঠার আগেই নিভে যায় ভোল্টা লেকের পানিতে। যে টাকার বিনিময়ে ওই শিশুদের বিক্রি করে দেওয়া হয়, তা দিয়ে দেশটিতে একটি গরু কেনা যায় মাত্র। ওই শিশুদের মধ্যে একজন অ্যাডাম। তপ্ত রোদের মধ্যে আরও পাঁচ শিশুকে নিয়ে লেকের পানিতে মাছ ধরাই তার কাজ। দিন নেই, রাত নেই, অবিরাম তাদের ওই কাজ করতে হয়। সিএনএনকে অ্যাডাম বলেন, ‘প্রত্যেক দিন সকালে ঘুম ভাঙার পর আমরা লেকে যাই। লেক থেকে মাছ ধরার জাল তোলার পর আমরা ফিরে আসি মাছ তুলতে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত যাতে আবার জাল পাতা যায় সে জন্য প্রস্তুত হই।’ অ্যাডামের বয়স কত তা সে জানে না। কিন্তু তাকে দেখতে ১২ বছর বয়সীদের মতো লাগে। ভোল্টা লেকে তার বস হলেন স্যামুয়েল নামের এক ব্যক্তি। তিন বছর ধরে তার অধীনে কাজ করে অ্যাডাম। কিন্তু অ্যাডামের স্বপ্ন অন্য শিশুদের মতো স্কুলে যাওয়া।

১৯৬৫ সালে ওই লেকটি তৈরি করা হয় একটি হাইড্রো ইলেকট্রিক বাঁধ নির্মাণের জন্য। আর ওই বাঁধ নির্মাণ করা হয় বিশ্বব্যাংক, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের অর্থায়নে। এই বাঁধ থেকেই বর্তমানে ঘানার সম্পূর্ণ বিদ্যুতের সরবরাহ করা হয়। উদ্বৃত্ত বিদ্যুৎ পাশের দেশে বিক্রি করে দেওয়া হয়। লেকের পানিতে অ্যাডামের মতো কম বয়সীদেরই কাজে রাখা হয়। কারণ কম বয়সীদের যেমন শাসন করতে সুবিধা, তেমনি কোনো পারিশ্রমিক না দিয়েও তাদের দিনের পর দিন খাটানো যায়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত