মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সংবাদ সম্মেলনে আতিকুল

ফুটপাত হবে রাজনীতি ও দখলমুক্ত

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ০৩:০৪ এএম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে বিজয়ী মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ফুটপাতটা হবে রাজনীতিমুক্ত, হবে দখলমুক্ত। গতকাল শনিবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর উত্তরায় নিজ বাসভবনে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যিনি রাজনীতি করেন না উনিও ফুটপাত দিয়ে হাঁটেন সুতরাং এ ফুটপাতটা হবে রাজনীতিমুক্ত-দখলমুক্ত, এ ফুটপাত হবে আমাদের সকলের জন্য উন্মুক্ত।’ নবনির্বাচিত মেয়র আরও বলেন, ‘আমি একটি রাজনৈতিক দল থেকে নির্বাচন করে এসেছি।  আমি বিশ্বাস করি এবারে যারা সংসদ সদস্য আছেন তারা আমাকে এ কাজে সহায়তা করবেন। আমরা একসঙ্গে ফুটপাতগুলো দখলমুক্ত করব।’ আগামী এক বছরের কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরে আতিকুল বলেন, ‘স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘমেয়াদি কর্মসূচি হিসেবে ঢাকা উত্তরের উন্নয়নকে তিন ভাগে ভাগ করেছি। আমি আগামী এক বছরে যা করতে চাই তা হলো- ঢাকা উত্তরকে আলোকিত নগরে পরিণত

করা, পরিবেশ দূষণ রোধ করা, ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে নগর অ্যাপকে সক্রিয় করা, কর ও লেনদেন ডিজিটালাইজড ও অটোমেটেড করা, বৃক্ষরোপণ, নগর বনায়ন, নগর কৃষির বিস্তার ও বিকাশ, প্রতি মহল্লায় উন্মুক্ত পার্ক ও খেলার মাঠ গড়ে তোলার মাধ্যমে সবুজ ঢাকা গড়ে তোলা হবে।  এ ছাড়া নতুন যুক্ত এলাকার উন্নয়নে পরিকল্পনা করা হবে।’ এ সময় তিনি প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের শুরু করা নগর উন্নয়নের কাজ শেষ করারও প্রতিশ্রুতি দেন। 

মশার নিধন প্রক্রিয়া নিয়ে মেয়র বলেন, ‘কালেক্টিভ পদ্ধতিতে মশার বিরুদ্ধে ক্রাশ প্রোগ্রাম নেওয়া হবে।  এজন্য সেনানিবাস, বসুন্ধরা আবাসিক, বিমানবন্দর, ডিএমপি ও সিটি করপোরেশনের মধ্যে সমন্বয় করে এটা বাস্তবায়ন করে মশা দূর করা হবে।’

নগরবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ঢাকা শুধু আমার শহর নয়, এই শহর আপনাদেরও। আমাদের সবার সামান্য সচেতনতা ও সহযোগিতা নগরীর উন্নয়নের জন্য দরকার। আমি বিশ্বাস করি, আমরা যে যার জায়গা থেকে ন্যূনতম সহযোগিতা করলেই ঢাকাকে সুন্দর, সচল ও আধুনিক শহরে পরিণত করতে পারব।’

রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে জনদুর্ভোগ বাড়ছে এ প্রশ্নের জবাবে নতুন মেয়র বলেন, ‘আমি সব সংস্থাকে অনুরোধ করব, কোনো উন্নয়নমূলক কাজের কারণে যাতে জনদুর্ভোগ না হয়। এ জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে ডেকে তাদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি জনগণের সেবক হিসেবে থাকতে চাই। আমি কাজ করে যাব। কোনো প্রকার ইনভেস্টমেন্টের কথা ভাবছি না। জনগণের সমর্থন নিয়ে মেয়র হয়েছি। আগে কাজ করি, পরে জনগণই তাদের সমর্থনের বিষয় জানাবে।’

নির্বাচনী পোস্টার দ্রুত সরাতে সবাইকে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘উত্তর সিটিকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করতে বিভিন্ন জায়গায় থাকা নির্বাচনী পোস্টার সরিয়ে ফেলতে এরইমধ্যে আমাদের একটি টিম মাঠে কাজ করছে।’ সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংসদ সাদেক খানসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত