মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

উদার দেশের তালিকায় এশিয়ায় ‘নবম’ বাংলাদেশ

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ০৩:৪৯ পিএম

ব্রিটিশ সংস্থা চ্যারিটিস এইড ফাউন্ডেশন (সিএএফ)’র করা উদার দেশের তালিকায় এশিয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান ৯ নম্বরে। গোটা বিশ্বের মধ্যে ৭৪ নম্বরে।

সিএএফের তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার ভেতর বাংলাদেশ চার নম্বরে। সামগ্রিক স্কোরের ভেতর বাংলাদেশ পেয়েছে ৩১ শতাংশ। ২২ শতাংশ স্কোর নিয়ে ভারত রয়েছে ১২৪তম স্থানে। ২৮ শতাংশ স্কোর নিয়ে পাকিস্তান ৯১তম। ৩৭ শতাংশ স্কোর নিয়ে সৌদি আরব ৫১ নম্বরে। ২৭ নম্বরে থাকা শ্রীলঙ্কার স্কোর ৪৫ শতাংশ।

কোনো দেশের মানুষ অপরিচিতকে কতটা সাহায্য করে, অর্থ সাহায্যে তারা কতটা আগ্রহী এবং স্বেচ্ছাসেবী কাজে কতটা সময় ব্যয় করে-এই তিনটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এই তালিকা তৈরি করা হয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিতর্কিত ভূমিকা নেওয়া মিয়ানমার ৯ নম্বরে। ২০১৪ সাল থেকে তারা প্রথম স্থানে ছিল।

সিএএফের নতুন তালিকায় রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে মিয়ানমারের সমালোচনা করা হয়েছে। সংস্থাটি বলছে, ‘অর্থ সাহায্যের ক্ষেত্রে, অপরিচিতকে সহায়তার ক্ষেত্রে এবং স্বেচ্ছাসেবী কর্মকাণ্ডে মিয়ানমারের স্কোর কমে গেছে। তা ছাড়া রোহিঙ্গা ইস্যুতেও তাদের ভূমিকা ভালো নয়।’

সর্বোচ্চ ৫৯ শতাংশ স্কোর নিয়ে ১৪৬টি দেশের মধ্যে শীর্ষে এশিয়ার দেশ ইন্দোনেশিয়া। এই প্রথম শীর্ষস্থান দখল করল তারা। ২০১৭ সালে দেশটি দ্বিতীয় স্থানে ছিল।

অপরিচিতকে সাহায্য করার দিক থেকে কোন দেশ কেমন, সেই তালিকায় বাংলাদেশ রয়েছে সাত নম্বরে।

তালিকার নবম সংস্করণে পাঁচ বছরের (২০১৩-২০১৭) তথ্য-উপাত্ত দেওয়া হয়েছে।

উদারতার দিক থেকে পশ্চিমা দেশগুলোর স্কোর কমেছে।

বিশ্বের মানবিকতার চিত্র তুলে ধরতে ৯ বছর ধরে এই তালিকা প্রকাশ করছে সিএএফ। ৬টি মহাদেশে দাতব্য সংস্থাটির ৯টি অফিস রয়েছে।

উদারতায় শীর্ষ দশটি দেশ:

১.ইন্দোনেশিয়া (স্কোর: ৫৯%)

২.অস্ট্রেলিয়া (৫৯%)

৩. নিউ জিল্যান্ড (৫৮%)

৪. আমেরিকা (৫৮%)

৫. আয়ারল্যান্ড (৫৬%)

৬. যুক্তরাজ্য (৫৫%)

৭. সিঙ্গাপুর (৫৪%)

৮. কেনিয়া (৫৪%)

৯. মিয়ানমার (৫৪%)

১০. বাহরাইন (৫৩%)

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত