শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আওয়ামী লীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ১৬

কুষ্টিয়ায় প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা

আপডেট : ০৪ মার্চ ২০১৯, ১২:৫৩ এএম

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চলে আসা বিরোধে আবার মুখোমুখি কুষ্টিয়া আওয়ামী লীগের দুই পক্ষ। গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সদর উপজেলার উজানগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের প্রতিপক্ষ সমর্থকদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও ফসল বিনষ্টের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ইউনিয়নের উজানগ্রাম, গজনবীপুর, সোনাইডাঙ্গা, বিত্তিপাড়া ও মাধবপুর গ্রামের সাধারণ বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে গ্রাম ছেড়ে নিরাপদে পালিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয় আধিপত্য বিস্তারে দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগ নেতা কুষ্টিয়া জেলা পরিষদ সদস্য আবদুল মজিদ গ্রুপের সঙ্গে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক গ্রুপের বিরোধ চলে আসছিল। তার জের ধরেই দুই পক্ষের মধ্যে এই হামলা-পাল্টা হামলা, অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ওসি রতন শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সংবাদ পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে একপক্ষের নেতৃত্ব পর্যায়ের আবু বক্করসহ উভয় পক্ষের ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রও। তাদের বিরুদ্ধে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অস্ত্র আইনে মামলা করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অপর পক্ষের নেতৃত্বদানকারী আবদুল মজিদকেও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে দাবি ওসির। উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি নির্বাচনী সহিংসতার জের ধরে পাশের আব্দালপুর ইউনিয়নে একইভাবে আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম মোস্তফা ও ইউপি চেয়ারম্যান আলী হায়দারের সমর্থক দুই পক্ষের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা, অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান আলী হায়দারের সমর্থক ও ইবি ছাত্রলীগের
সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের বাবা মঈনুদ্দিন বিশ্বাস (৫৮) নিহত হন। এর রেশ কাটতে না কাটতেই আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ নতুন করে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত