বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বিধবা ভাতা নিচ্ছেন দুই ইউপি সদস্য

আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৯ পিএম

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের মহেড়া ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের দুই নারী সদস্য হাজেরা আক্তার ও পারুল আক্তার দীর্ঘদিন ধরে বিধবা ভাতা নিচ্ছেন। হাজেরা প্রায় দেড় বছর এবং পারুল প্রায় দুই বছর ধরে এ ভাতা গ্রহণ করছেন। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সম্মানী নেওয়ার পাশাপাশি বিধবা ভাতা নেওয়ায় এ নিয়ে এলাকার মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

ইউপি কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় চার বছর আগে হাজেরার স্বামী এবং তিন বছর আগে পারুলের স্বামী মারা যান। তাদের বিধবা ভাতা প্রদানের বিষয়ে ইউপির সভায় আলোচনা হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ওই দুজনকে ভাতা প্রদানের জন্য সুপারিশ করে উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে পাঠালে তাদের নামে ভাতা অনুমোদন হয়।

হাজেরা জানান, তার তিন মেয়ে। একজনের বিয়ে হয়েছে। দুজন লেখাপাড়া করছে। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে প্রাপ্ত সম্মানী দিয়ে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ ও সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। এ জন্য তিনি বিধবা ভাতা নিচ্ছেন।

পারুল বলেন, ‘আমি এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে খুবই কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। মেম্বার হিসেবে আমার এই টাকা নেওয়া ঠিক নয়। ব্যক্তিগত হিসেবে এটা আমার জন্য প্রযোজ্য। সব মেম্বারের সামনে আমি প্রস্তাব করেছিলাম ভাতা নেওয়ার জন্য। সবাই নিতে বলছেন। এ জন্য নিচ্ছি।’

ইউপি চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়া বলেন, ‘মেম্বার হলেই তো সে ধনী নয়। ইউপির সব সদস্য তাদের ভাতা দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছিলেন। এ জন্য তাদের ভাতা প্রদানের সুপারিশ করা হয়েছিল।’

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ খাইরুল ইসলাম বলেন, ‘তারা নীতিগতভাবে বিধবা ভাতা নিতে পারেন না। তারা ইউপি থেকে সরকারি সুবিধা ভোগ করছেন। একই ব্যক্তি দুইভাবে সরকারি সুবিধা নিতে পারেন না। এটা অনৈতিক। বিষয়টি ইউনিয়ন কমিটিকে জানানো হবে। কমিটি তাদের ভাতা বাতিলের প্রস্তাব দিলে ভালো। না হলে উপজেলা কমিটিতে আলোচনা করে  প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত