রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্যান্ডোরা পেপার্সে আরও ৩ বাংলাদেশি

আপডেট : ০৬ মে ২০২২, ০২:০৬ এএম

বিদেশে সম্পদ গড়ে তোলা আরও তিন বাংলাদেশির নাম প্রকাশ করেছে প্যান্ডোরা পেপার্স। গত মঙ্গলবার ওয়াশিংটনভিত্তিক অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের জোটইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টস (আইসিআইজে) এ তালিকা প্রকাশ করে। এ নিয়ে ১১ বাংলাদেশির নাম এলো প্যানডোরা পেপার্সে।

আইসিআইজে সম্পদশালী অভিজাতদের অফশোর সম্পদের রহস্য উন্মোচন করতে প্যান্ডোরা পেপার্স নামক নথিভাণ্ডার তৈরি করে। এ নথিতে আসা নতুন তিন বাংলাদেশি হলেন এস হেদায়েত উল্লাহ, এস রুমি সাইফুল্লাহ ও শাহেদা বেগম শান্তি। এস হেদায়েত উল্লাহ, এস রুমি সাইফুল্লাহ ঢাকার বারিধারা ডিওএইচএসের নর্দার্ন রোডের বাসিন্দা। আর শাহেদা বেগম শান্তি সিলেটের শাহজালাল এলাকার বাসিন্দা। অবশ্য তালিকায় তাদের নাম কিছুটা ঘুরিয়ে উল্লাহ এস. হেদায়েত ও সাইফুল্লাহ এস. রুমি নামেও এসেছে।

আইসিআইজে বলছে, প্রথম দুজন হংকংয়ে ট্রান্সগ্লোবাল কনসালটিং নামে একটি প্রতিষ্ঠানে গোপন বিনিয়োগ করেছেন। আর শাহেদা বেগম শান্তির বিনিয়োগ রয়েছে জাস লিমিটেড নামের একটি অফশোর কোম্পানিতে।

রুমি সাইফুল্লাহ ভিনসেন্ট নামের একটি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তিনি তরুণ পেশাজীবী ও উদ্যোক্তাদের সংগঠন জুনিয়র চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশের (জেসিআই বাংলাদেশ) সাবেক সভাপতি। এ ছাড়া সুইজারল্যান্ডভিত্তিক এমজিআই মিডিয়া এজির আঞ্চলিক পরামর্শক এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ওয়েস্ট কনসার্নের পরামর্শক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

গত বছর ৩ অক্টোবর প্যানডোরা পেপার্সের প্রথম ধাপের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন, জর্ডানের বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আল-হুসাইনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৩৫ বর্তমান ও সাবেক নেতার পাশাপাশি সরকারি কর্মকর্তা, সেনা কর্মকর্তাসহ তিন শতাধিক কোটিপতির গোপন বিনিয়োগ বা অর্থ পাচারের তথ্য ফাঁস হয়।

এরপর ওই বছরের ৬ ডিসেম্বর প্রকাশ হয় দ্বিতীয় ধাপের তালিকা। দ্বিতীয় ধাপের তালিকায় আট বাংলাদেশি ও বাংলাদেশের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আট ব্যক্তির নাম আসে। তারা হলেন নিহাদ কবির, সাইদুল হুদা চৌধুরী, ইসলাম মঞ্জুরুল, আজিজ মোহাম্মদ ভাই, সাকিনা মিরালী, অনিতা রানী ভৌমিক, ওয়াল্টার পোলাক ও ডেনিয়েল আর্নেস্তো আইউবাত্তি।

পানামার আইনি সংস্থা অ্যালেমান, কর্ডেরো, গ্যালিন্ডো অ্যান্ড লি (অ্যালকোগাল) এবং ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জের সদর দপ্তরে অবস্থিত ফিডেলিটি করপোরেট সার্ভিসেসের কাছ থেকে এসব তথ্য পেয়েছে বলে জানিয়েছে আইসিআইজে। বিশ্বের ১১৭টি দেশের দেড়শ গণমাধ্যমের ছয় শতাধিক সাংবাদিকের দীর্ঘ অনুসন্ধানে আর্থিক এ কেলেঙ্কারির তথ্য ফাঁস হয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত