বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বোতল দিয়েও যৌন নির্যাতন করেছে জনি, অভিযোগ অ্যাম্বারের

আপডেট : ০৬ মে ২০২২, ০৬:২৫ পিএম

মানহানির মামলার শুনানিতে সাক্ষ্য গ্রহণের সময় জনি ডেপের বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ করে চলেছেন অ্যাম্বার হার্ড। গত বুধবারের শুনানিতে অ্যাম্বার অভিযোগ করেছিলেন, তার যৌনাঙ্গে আঙুল ঢুকিয়ে যন্ত্রণা দিতেও দ্বিধা করেননি জনি! অ্যাম্বার বলেন, একদিন পাগলের মতো কোকেন খুঁজছিলেন জনি। তখনই অ্যাম্বারের উপরে চড়াও হন তিনি। একটানে অ্যাম্বারের গাউন ছিঁড়ে মাদকের খোঁজে সরাসরি তার যৌনাঙ্গে আঙুল ঢুকিয়ে দেন হলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা জনি! তার ধারণা হয়েছিল, ওখানেই কোকেন লুকিয়ে রেখেছেন অ্যাম্বার! যন্ত্রণায় ছটফট করেছিলেন অভিনেত্রী।

এবার বৃহস্পতিবারের শুনানির সময় অ্যাম্বার আরও বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন। অ্যাম্বার বলেন, ২০১৫ সালে বিয়ের এক মাস পরে এক উত্তপ্ত তর্কের সময় একটি ভাঙা বোতল দিয়ে তার মুখ ‘খোদাই’ করার হুমকি দিয়ে এমনকি এক পর্যায়ে তার যৌনাঙ্গে একটি বোতলও ঢুকিয়ে দেন জনি ডেপ।

‘পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান’ তারকা জনি ডেপের করা মানহানির মামলায় সাক্ষ্যের দ্বিতীয় দিনে ‘অ্যাকোয়াম্যান’ খ্যাত ৩৬ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের একাধিক ঘটনা বর্ণনা করেছেন।

২০১৫ সালের মার্চ মাসে অস্ট্রেলিয়ায় ‘পাইরেটস’ সিরিজের পঞ্চম ছবির শুটিংয়ের সময় ওই ঘটনা ঘটে বলে জানান অ্যাম্বার।

ডেপ এর আগে অভিযোগ করেছিলেন যে, ক্রুদ্ধ অ্যাম্বার হার্ডই তার দিকে ভদকার বোতল নিক্ষেপ করে তার একটি আঙ্গুলের ডগা কেটে ফেলেছিলেন।

কিন্তু বৃহস্পতিবারের সাক্ষ্যে হার্ড ভিন্ন কথা বলেছেন। অ্যাম্বার বলেন যে, তিনি ডেপকে মদপান ছাড়ার জন্য জোরাজুরি করেছিলেন এবং তিনি তার কাছ থেকে একটি বোতল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করার মতো সাহস দেখিয়েছিলেন।

অ্যাম্বার বলেন, ‘টানাটানির সময় বোতলটি ঠিক আমাদের মাঝখানের মাটিতে পড়ে যায়। আর এতেই ক্ষেপে যায় জনি। এরপর সে আমার দিকে আরেকটি বোতল ছুড়ে মারে। তবে সেটি আমাকে আঘাত করতে পারেনি। এরপরও জনি একের পর এক সোডা ও বিয়ারের ক্যান ছুড়ে মারতে থাকে। এবং এক পর্যায়ে আমার মুখ, ঘাড় এবং চোয়ালের কাছে একটি ভাঙ্গা বোতল উঁচিয়ে ধরে আমার চেহারা খোদাই করে দেওয়ার হুমকি দেয়। এসময় সে চিৎকার করে বলছিল যে, আমি তার জীবন ধ্বংস করে দিয়েছি’।

কান্নায় ভেঙে পড়ে অ্যাম্বার আরও বলেন যে, ‘এরপর জনি আমার নাইট গাউন ছিড়ে ফেলে আমার ভেতরে একটি বোতল ঢুকিয়ে দেয় এবং বারবার সেটি ভেতরে ঢুকাতে এবং বের করতে থাকে’। এসময় জনি তাকে মেরে ফেলার হুমকিও দিতে থাকেন বলে জানান অ্যাম্বার।

হার্ড বলেন, এক পর্যায়ে তিনি জনির হাত থেকে পালাতে সক্ষম হন। এবং পরের দিন সকালে যখন তিনি তার শোবার ঘর থেকে নেমে আসেন তখন তিনি দেখতে পান যে, ডেপ তার আঙুল থেকে রক্ত, খাবার এবং রঙ ব্যবহার করে সারা বাড়িতে আয়না, দেয়াল, ল্যাম্পশেড এবং অন্যান্য জায়গায় ‘অসংলগ্ন’ কথাবার্তা লিখে রেখেছেন।

হার্ড বলেন, কীভাবে জনির আঙ্গুলের ডগা কেটেছে তা তিনি জানতেন না।

হার্ড আরও একটি ঘটনার কথা বলেন, যে ঘটনায় জনি ডেপ ‘দ্য অ্যাডেরাল ডায়েরিজ’-এ সহ-অভিনেতা জেমস ফ্রাঙ্কোর সঙ্গে তার সম্পর্ক থাকার অভিযোগে তাকে একটি বিমানে চড় ও লাথি মেরেছিলেন।

হার্ড বলেন, ‘জেমস ফ্রাঙ্কোর সঙ্গে কাজ নেওয়ার কারণে জনি আমার উপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। কারণ তিনি জেমস ফ্রাঙ্কোকে ঘৃণা করতেন। এবং জনি ইতিমধ্যেই আমার বিরুদ্ধে এই বলে অভিযোগ করেছিলেন যে, ‘পাইনঅ্যাপল এক্সপ্রেস’ ছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করার পর থেকেই ফ্রাঙ্কোর সঙ্গে আমার গোপন সম্পর্ক শুরু হয়েছে’।

২০১৪ সালের মে মাসে একটি ফ্লাইটে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে হার্ড বলেন, ‘জনি আমাকে বেশ্যা বলেও গালি দিয়েছেন’।

অ্যাম্বার বলেন, মাতাল অবস্থায় জনি ডেপ তার মুখজুড়ে থাপ্পড় এবং পিঠে লাথি মারেন। সেসময় জনি ডেপের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা এবং তার সহকারীরাও বিমানে ছিলেন। কিন্তু কেউ কিছু বলেনি, কেউ কিছু করেনি। সেখানে পিন পতন নীরবতা ছিল। এবং ‘আমি খুব বিব্রত বোধ করছিলাম’।

তবে, জনি ডেপ চার দিন আগে তার সাক্ষ্য দেওয়ার সময় অ্যাম্বার হার্ডের ওপর শারীরিকভাবে নির্যাতনের কথা অস্বীকার করেছিলেন এবং দাবি করেছিলেন যে উল্টো হার্ডই প্রায়শই তার সঙ্গে হিংস্র আচরণ করত।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক লেখায় অ্যাম্বার হার্ড নিজেকে গার্হস্থ্য সহিংসতার শিকার বলে দাবি করায় তার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করে ৫ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেন জনি ডেপ। কিন্তু ওই লেখায় অ্যাম্বার জনি ডেপের নাম নেননি। এরপর প্রাক্তন স্বামীকে মিথ্যাবাদী দাবি করে পাল্টা মামলা করে ১০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন অ্যাম্বারও হার্ডও।

২০১৫ সালে বিয়ে হয় জনি (৫৮) এবং অ্যাম্বারের (৩৬)। গার্হস্থ্য সহিংসতা এবং তুমুল অশান্তির দাম্পত্য পেরিয়ে ২০১৭ সালে বিচ্ছেদ হয় তাদের।

অ্যাম্বার জানান, ‘সে ছিল আমার জীবনের ভালোবাসা। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই সে আমাকে সন্দেহ করতে শুরু করে। সে ভাবত আমি আমার সব পুরুষ বন্ধুর সঙ্গেই বিছানায় যাই। এমনকি আমি যখন প্রমাণ করতাম যে, আমি এর সঙ্গে বিছানায় যাইনি বা ওর সঙ্গেও বিছানায় যাইনি। তখন সে বলতো আমি হয়তো অন্য কারো সঙ্গে বিছানায় যাই’।

তিনবার অস্কার পুরস্কারের জন্য মনোনীত জনি ডেপ এবং অ্যাম্বার হার্ড ২০০৯ সালে ‘দ্য রাম ডায়েরি’ ছবির সেটে পরস্পরের প্রেমে পড়েন। এরপর ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিয়ে করেন। এর দুই বছর পরে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে অ্যাম্বার ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক মতামত কলামে দাবি করেন তিনি স্বামীর হাতে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

২০২০ সালের নভেম্বের তাকে ‘বউ পেটানো’ নায়ক বলায় জনি ডেপ ব্রিটেনের দ্য সান পত্রিকার বিরুদ্ধেও মামলা করেছিলেন। তবে সেই মামলায় হেরে যান জনি। অ্যাম্বারের সঙ্গে জনির মামলার শুনানি চলছে গত ১১ এপ্রিল থেকে।

আরও পড়ুন...

কোকেন খুঁজতে আমার যৌনাঙ্গে আঙুল ঢুকিয়ে দেয় জনি: অ্যাম্বার

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত