বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৪৪ পিএম

ফরিদপুরে রিনা বেগমকে (২৬) হত্যার দায়ে স্বামী হাসান মাতুব্বরকে (৩৪) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক শিহাবুল ইসলাম এ আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় হাসান মাতুব্বর আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় প্রদানের পর তাকে পুলিশ প্রহরায় জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

হাসান মাতুব্বর ফরিদপুরের সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের রামকান্তপুর গ্রামের বাসিন্দা। স্ত্রী রিনা বেগম একই উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কুমারপট্টি গ্রামের মো. শাহাজাহান শেখের মেয়ে। তাদের তানিসা (৭) ও তালহা (৫) নামের দুটি সন্তান রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাষ্ট্রপক্ষের পিপি সানোয়ার হোসেন বলেন, স্বামী হাসান মাতুব্বরের বিরুদ্ধে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালে হাসানের সঙ্গে রিনার বিয়ে হয়। বিয়ের পর হাসান তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকা চলে যান। এসময় স্বামী হাসান মাতুব্বর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার স্ত্রীকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করে আসছিলেন। এ ঘটনা রিনা বেগম তার বাবার বাড়িতে জানায়। পরে রিনা বেগমকে তার পরিবারের লোকজন ঘটনার সাত/আট মাস আগে তার দুই সন্তানসহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসেন।

ছয়মাস পর রিনা বেগম ফরিদপুরে কাজের জন্য আসেন। তিনি শহরের চরকমলাপুর এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। রিনা বিভিন্ন বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। রিনাকে ঢাকা থেকে নিয়ে আসায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন ক্ষিপ্ত হয়। রিনার মৃত্যুর দেড় মাস আগে স্বামী হাসান মাতুব্বর ফরিদপুর শহরে রিনার ভাড়া বাসায় আসেন।

সেখানে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস শুরু করেন। কয়েকদিন যাওয়ার পর পুনরায় রিনা ও হাসানের মধ্যে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে গত ২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি দিবাগত রাতে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় রিনা বেগমকে।

এ ঘটনায় নিহত রিনার ভাই মো. ইলিয়াস বাদী হয়ে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় নিহতের স্বামী হাসান মাতুব্বর ও তার ভাই রবিউল মাতুব্বরকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

গত ২০২০ সালের ২৫ নভেম্বর স্বামী হাসান মাতুব্বরের নামে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অসীম বিশ্বাস। এসময় অভিযোগপত্র থেকে বাদ দেওয়া হয় হাসানের ভাই রবিউল মাতুব্বরকে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত