রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আত্মবিশ্বাস অর্জনের উপায়

আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৬ এএম

যার নিজের ওপর বিশ্বাস নেই, তার ওপর অন্য কেউ বিশ্বাস রাখতে পারে না। জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে আত্মবিশ্বাসের গুরুত্ব অপরিসীম। নিজের ওপর বিশ্বাসের ঘাটতি দেখা গেলেও কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে আত্মবিশ্বাস অর্জন বা বৃদ্ধি করা সম্ভব। জানাচ্ছেন বিপুল জামান

সততার চর্চা : আত্মবিশ্বাসহীনতার জন্ম হয় অসততা থেকে। সর্বদা সততার জয় হয় বলে অসৎ ব্যক্তি ধরা পড়ার ভয়ে ভীত-সন্ত্রস্ত থাকেন। সৎ ব্যক্তির কিছু লুকানোর নেই, তাই তার ভেতরে আত্মবিশ্বাসবোধ সহজাতভাবে জন্মায়।

শরীরচর্চা : সুস্থ-সবল দেহের অধিকারী ব্যক্তি শারীরিক ও মানসিকভাবে থাকে শক্তিশালী। যেকোনো বাধাকে অতিক্রমের সাহস রাখেন তিনি। তার এই আত্মবিশ্বাসের উৎস হলো সুস্বাস্থ্য। আর সুস্বাস্থ্য অর্জনের জন্য প্রয়োজন নিয়মিত শরীরচর্চা।

ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি : আত্মবিশ্বাসহীনতা আসে নিজের প্রতি নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির কারণে। ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণের মাধ্যমে ব্যক্তির মননে জাগ্রত হয় সমস্যার পরিবর্তে সম্ভাবনা। ব্যক্তি অগ্রসর হন অর্জনের পথে, কর্মের দিকে, যা তাকে মুক্ত করে আত্মবিশ্বাসহীনতা থেকে। এ কারণে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির অনুসরণ আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

ধ্যান : ধ্যান করলে মনোযোগ বৃদ্ধি পায়। কাজে আগ্রহ বাড়ে। সফলতা অর্জন সহজ হয়। সাফল্য ব্যক্তিকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলে। ধ্যানে স্বপ্রত্যয়ন বা অটোসাজেশন দ্বারা ব্যক্তি নিজেকে নিজে প্রভাবিত করতে পারেন। ধ্যানের গভীর স্তরে আত্মবিশ্বাস অর্জনের স্বপ্রত্যয়ন ব্যক্তিকে বাস্তবজীবনে আত্মবিশ্বাসী করে তোলে। তাই আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিতে নিয়মিত ধ্যান করো।

নিজের ইতিবাচক পরিবর্তন খেয়াল করো : নিজের সফলতাকে লক্ষ্য না করা আত্মবিশ্বাসহীনতার অন্যতম কারণ। নিজের সফলতা অগোচরে থেকে যাওয়ার অন্যতম কারণ হলো মনোযোগের অভাব। এই মনোযোগের অভাবের কারণে অপরের সফলতাই শুধু চোখে পড়ে এবং হীনমন্যতার কারণে ব্যক্তি আত্মবিশ্বাসহীনতায় ভোগেন। এ সমস্যা উত্তরণের জন্য নিজের ইতিবাচক পরিবর্তনের প্রতি মনোযোগ দাও। তাহলে বুঝতে পারবে প্রতিনিয়ত কত বাধাকে অবলীলায় অতিক্রম করছো। এই উপলব্ধি তোমাকে দেবে আত্মবিশ্বাস।

লক্ষ্য পূরণ : লক্ষ্য অর্জনের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠেন। তাই অর্জনের দিকে মনকে কেন্দ্রীভূত করুন। প্রয়োজনে বড় লক্ষ্যকে ছোট ছোট ভাগে ভাগ করে সমাধা করুন। কিন্তু কাজ ফেলে রাখবেন না। এই ছোট লক্ষ্যগুলো পূরণ করতে পারলে ধীরে ধীরে মানসিকভাবে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন। এই আত্মবিশ্বাস ক্রমেই বড় লক্ষ্য অর্জনের অনুপ্রেরণা হয়ে উঠবে।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত