সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বছরের শেষ সূর্যাস্ত দেখতে কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভিড়

আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:২১ পিএম

থার্টিফার্স্ট নাইটে পর্যটন নগরী কুয়াকাটায় দেশি-বিদেশি পর্যটকের মেলা বসেছে। ইংরেজি পুরাতন বছরকে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে বরণ করতে সমুদ্র সৈকতে হাজার হাজার পর্যটকের আগমন ঘটেছে।

বছরের শেষ সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য উপভোগসহ ২০২৩ সালকে স্মরণীয় করে রাখতে যুগল, তরুণ- তরুণী ভিড় ছিল লক্ষ্যণীয়।পাশাপাশি শিশুসহ পরিবার পরিজন নিয়ে থার্টিফার্স্ট নাইট উদযাপন করতে এসেছেন অনেকেই।

প্রকৃতিও আজ হাসছে কুয়াকাটায় পর্যটকের সঙ্গে। মেলে ধরেছে তার সকল সৌন্দর্য। মৃদু বাতাসে সৈকতের নারিকেলকুঞ্জ ও ঝাউবাগানের পত্রমালাও সাগরের ঢেউয়ের সঙ্গে দুলছে। গোটা সৈকতে জোয়ারে ভেসে আসা ছোট ছোট ঝিনুক যেন কার্পেটের মতো বিছিয়ে রয়েছে পর্যটকদের স্বাগত জানাতে। সাগরের কয়েক কিলোমিটারের মধ্যে ভেসে বেড়াচ্ছে ছোট ছোট পর্যটকবাহী ওয়াটার বাইক,স্প্রিডবোর্ড, ট্রলার, লঞ্চ ও ডিঙি নৌকা। পূর্ব আকাশকে পেছনে ফেলে সবাই ছুটছে পশ্চিম আকাশ পানে তাকিয়ে সৈকতে। পশ্চিমের আকাশ সিঁদুর রংয়ে রাঙিয়ে অস্ত যাবে সূর্য।

স্কুল, কলেজের ছাত্র-ছাত্রীসহ হাজারো পর্যটক সৈকতের বালুকা বেলায় অপেক্ষা করছে শেষ স্মৃতি ধরে রাখতে। বিদায় জানাতে ২০২২ সালকে। দেশের অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতের শনিবার বিকালের চিত্র এটি। পর্যটকদের আগমনে গোটা সৈকত জুড়ে উৎসবের আমেজ।

যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, হোটেল-মোটেলের সুবিধা ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো হওয়া কুয়াকাটায় হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছে। কুয়াকাটা সৈকত ছাড়াও কুয়াকাটাগামী আন্ধারমানিক নদীর ওপর নির্মিত শেখ কামাল সেতু, টিয়াখালী নদীর ওপর নির্মিত শেখ জামাল সেতু ও শিববাড়িয়া নদীর ওপর নির্মিত শেখ রাসেল সেতুর ওপরও ছিল বছরের শেষ সূর্যাস্ত দেখতে মানুষের ভিড়। এছাড়া পায়রা সমুদ্র বন্দর, গঙ্গামতি সৈকত ও কাউয়ার চরে পিকনিক পার্টির কয়েক হাজার পর্যটক নতুন বছরকে স্বাগত এবং পুরাতন বছরকে বিদায় জানাতে সমাগম হয়েছে।

কুয়াকাটার হোটেল খান প্যালেসের ম্যানেজার ফায়জুল করিম ইমন জানান, এ বছর পর্যটকদের সমাগম চোখে পরার মত। কুয়াকাটার অধিকাংশ আলীশান হোটেল-মোটেলসহ সরকারি ডাকবাংলোর রুমগুলো বুকিং হয়েছে। থার্টি ফাস্ট নাইট উদযাপনকে ঘিরে শনিবার সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকের সমাগম হয়েছে।

কুয়াকাটার ইলিশ পার্ক’র পরিচালক রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান, বছরের শেষদিন উদযাপনকে ঘিরে ইলিশ পার্কে প্রতিবছরের মতো এবারও পর্যটকদের বিনোদনের জন্য রয়েছে বিভিন্ন আয়োজন।

কুয়াকাটায় ভ্রমণে আসা সরকারি বিএম কলেজের শিক্ষার্থী তাওহীদ, অভি, রনি ও মিজান জানান, তারা ১৯ জন এসেছেন কুয়াকাটায়। এখানে রাত্রিযাপনসহ ভোরের নতুন বছরের সূর্যোদয়ের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য অবলোকন করবেন তারা। তাদের মতো দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কুয়াকাটায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা কুয়াকাটায় এসেছেন বছরের শেষ সূর্যাস্তের দৃশ্য উপভোগ করতে।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল খালেক জানান, ডিসেম্বর জুড়ে পর্যটকদের চাপ। তাই সার্বিকভাবে আমরা তৎপর রয়েছি। আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাও কাজ করছে। যাতে পর্যটকরা কোনো হয়রানির স্বীকার না হয়। নতুন বছরকে শুভেচ্ছা জানাতে যে পর্যটকরা কুয়াকাটায় এসেছে তাদের সব ধরনের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত