বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সরকারের পালাবার কোনো পথ নেই : ফখরুল

আপডেট : ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬:২৬ এএম

‘আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পালায় না’Ñরাজশাহীতে জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিগত ওয়ান-ইলেভেনের উদাহরণ টেনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘কোন দিকে পালাবেন? কোনো দিকে পালাবার পথ নেই; উত্তরে সুউচ্চ পর্বতমালা, দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর। কোন দিকে পালাবেন? তাই বলছিÑএখনো সময় আছে আমাদের ১০ দফা দাবি মেনে নিয়ে পদত্যাগ করুন। সংসদ বাতিল করুন। তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা নিয়ে আসুন। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে নির্বাচন দিন।’ গতকাল সোমবার বেলা পৌনে ৩টায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের পাশে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত পদযাত্রার উদ্বোধনপূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে বেলা ২টা ৫০ মিনিটে যাত্রাবাড়ী থেকে শ্যামপুর পর্যন্ত পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এতে নেতৃত্ব দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। এ সময় দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও ১০ দফা দাবি আদায়ে রাজধানীতে চারদিনের পদযাত্রার দ্বিতীয় দিনের পদযাত্রা শ্যামপুরের  জুরাইন রেল গেটের কাছাকাছি গিয়ে শেষ হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিগত ওয়ান-ইলেভেনের সময় কারা দেশ থেকে পালিয়েছিল, দেশের মানুষ সব জানে। কিন্তু পালাননি একজন, তিনি হলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সুতরাং এসব কথা বলে লাভ নেই। খালেদা জিয়া তখন পরিষ্কারভাবে বলেছিলেন, বিদেশে আমার কোনো জায়গা নেই। এ দেশ আমার, এ দেশের মাটি আমার, আমি এ দেশ ছেড়ে কোথাও যাব না।

এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘পালাবার পথ খুঁজে পাবেন না। পালাবেন কোন দিকে? কোনো দিকে পালাবার পথ নেই। এখনো সময় আছে, ১০ দফা দাবি মেনে নিয়ে মানে মানে পদত্যাগ করুন।’

মাগুরার দাদা বানানো হয়েছে : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের উপনির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘জাতীয় সংসদ থেকে আমাদের এমপিরা পদত্যাগ করেছেন। এই আসনের সাবেক এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার নির্বাচনে যাওয়ায় দল থেকে বহিষ্কার করেছি। তাকে জয়লাভ করানোর জন্য সমস্ত নীতি-নৈতিকতা বাদ দিয়ে আপনাদের প্রার্থীকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। সাত্তারের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আসিফকে গত তিনদিন ধরে পাওয়া যাচ্ছে না। সমস্ত নির্বাচনব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছেন। মাগুরার কথা বলেন। ‘মাগুরার দাদা’ বানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে। এ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না।’

চলমান কর্মসূচির বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আজকের এই পদযাত্রা গণতন্ত্রের জয়যাত্রা, সভ্যতার জয়যাত্রা, অধিকার আদায়ের জয়যাত্রা, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জয়যাত্রা। তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার জয়যাত্রা।’

এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ^র চন্দ্র রায় বলেন, ‘এটা আমাদের কোনো মরণযাত্রা না। আপনারা মরলে জানাজা পড়ানোর লোক থাকে না। তাই আমরা আগাম আপনাদের জন্য শোক মিছিল করছি। ভবিষ্যতে তো আপনাদের জন্য শোক মিছিল করার কেউ থাকবে না। সুতরাং এ শোক মিছিলের মধ্য দিয়েই এই অবৈধ সরকারকে পতন করব। এই মাফিয়া সরকারের হাত থেকে এ দেশকে জনগণের হাতে তুলে দেব।’

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে ও রফিকুল আলম মজনুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না প্রমুখ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত