সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ঋতুপর্ণ ঘোষের ‘চিত্রাঙ্গদা’

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১:৪৪ পিএম

শোবিজ তারকারা সারা বছর দর্শকদের বিনোদনের জন্য কাজ করেন। কিন্তু তারা কীসে বিনোদিত হন? তা জানাতেই এই আয়োজন

সামিনা হোসেন প্রেমা

নৃত্যশিল্পী ও নৃত্য পরিচালক

নাচ তো আমার মনের খোরাক। নাচের সঙ্গে কিছুর তুলনা হবে না। আমার সব আনন্দ নাচেই কেন্দ্রীভূত। যখন পারিশ্রমিকের বিনিময়ে নিজের পছন্দ মতো নাচ করতে পারি তার চেয়ে আনন্দ আর কিছুতেই খুঁজে পাই না। কারণ নাচকে কর্মাশিয়াল করার জন্য এখন পৃষ্ঠপোষক আর আয়োজকদের যে ধরনের ডিমান্ড থাকে তা ফুলফিল করে নাচ করাটা মানে হলো শিল্পের মানের সঙ্গে কম্প্রোমাইজ করা। যদিও আমার ক্ষেত্রে এই পরিস্থিতি কমই হয়। কারণ আমার এমন কিছু নিজস্ব কোরিওগ্রাফি আছে, যেগুলো আমি আমার পরিপূর্ণ স্বাধীনতা ও ভালোলাগা থেকে করেছি। আর সেই নাচগুলোই যখন মঞ্চে পরিবেশনা করি, দর্শক ভীষণ উপভোগ করে। ‘সোহাগ চাঁদ বদনী’, ‘তাকধুম তাকধুম’ বা ‘কোন গাঙে আইল পানি’ আমি যে কতবার স্টেজে করেছি তার কোনো হিসাব নেই। নাচের বাইরে পেইন্টিং এক্সিবিশন দেখতে ভালো লাগে। প্রচুর নাটক সিনেমা দেখা হয়। হইচইয়ের ওয়েব সিরিজ ‘তকদীর’ আমার খুব ভালো লেগেছে। তবে যাই দেখি না কেন, সেই গল্পের সঙ্গে নাচকে রিলেট করি। যেমন ঋতুপর্ণ ঘোষ তার ‘চিত্রাঙ্গদা’ সিনেমার গল্পের সঙ্গে নাচকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। আমারও ইচ্ছা তেমন কিছু কাজ করার। যদিও আমাদের দেশে সে ধরনের সুযোগ-সুবিধা একেবারেই নেই।

কথা বলেছেন মাসিদ রণ

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত