বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

২৬৫ কোটি টাকার তেল-ডাল কিনছে সরকার

আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৯:৩৩ পিএম

এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবার ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল এবং ৮০ লাখ কেজি মসুর ডাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। পণ্য বিক্রয়কারী সরকারি সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে সাশ্রয়ী দামে তা কেনা হবে। এতে খরচ হবে ২৬৫ কোটি ৪১ লাখ টাকা। রমজান মাস সামনে রেখে এই ভোজ্য তেল ও মসুর ডাল কিনবে সরকার।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলাদা দুটি প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। বৈঠক শেষে পণ্য দুটি কেনার সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান।

সাঈদ মাহবুব খান বলেন, সিটি এডিবল ওয়েল লিমিটেড থেকে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ জন্য ব্যয় হবে ১৯১ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম পড়বে ১৭৪ টাকা ৫০ পয়সা। আগের সপ্তাহে একই পরিমাণ সয়াবিন তেল কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল মেঘনা এডিবল ওয়েল থেকে ১৭৬ টাকা ৮০ পয়সা লিটার দরে।

এ ছাড়া গত মঙ্গলবার তুরস্কের আরবিল বাকলিয়াত হুবুবাত সান্তিক কোম্পানি থেকে আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে ৮০ লাখ কেজি (আট হাজার টন) মসুর ডাল কেনার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ মসুর ডাল আমদানি করতে খরচ হবে ৭৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। প্রতি টন মসুর ডালের দাম পড়বে ৮৫৮ মার্কিন ডলার। আগের সপ্তাহেও একই কোম্পানি থেকে একই পরিমাণ মসুর ডাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার।

টিসিবি ফ্যামিলি কার্ডের আওতায় একজন কার্ডধারীর কাছে দুই লিটার সয়াবিন তেল, দুই কেজি মসুর ডাল, এক কেজি চিনি ও দুই কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করা হয়। এগুলোর দর হচ্ছে প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১১০ টাকা, প্রতি কেজি চিনি ৫৫ টাকা, মসুর ডাল ৬৫ টাকা ও পেঁয়াজ ২০ টাকা। পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে শুধু সিটি করপোরেশন এলাকায় এবং টিসিবির আঞ্চলিক কার্যালয় রয়েছে এমন জেলাগুলোয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত