বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

শান্তর ব্যাটে বাংলাদেশের গৌরব

আপডেট : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০১:২৪ এএম

নাজমুল হোসেন শান্ত যেন বাংলাদেশের নতুন লিটন দাশ। কয়েক বছর আগে লিটন দাশকে নিয়ে কত সমালোচনা হয়েছিল। কেন এত সুযোগ পাচ্ছেন? কেন এত ব্যর্থ হচ্ছেন? কত প্রশ্ন। অথচ সেসব পাশ কাটিয়ে গত দুই বছরে বাংলাদেশের সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটার হয়ে উঠেছেন লিটন দাশ। টেস্ট, ওয়ানডে কি টি-টোয়েন্টি লিটনের ব্যাট এত নিয়মিত হাসছে যে, তাকে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ পা-ব বলছেন অনেকেই! লিটনের দেখানো পথে এখন চলছেন শান্ত। সমালোচনার ঝড় সামলে এই তরুণের ওপর আস্থা রেখেছিল বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টও। সেই আস্থার প্রতিদান দিচ্ছেন তিনি। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ৫ ম্যাচে ১৮০ করে। এবার বিপিএলের সেরা ব্যাটার হলেন ১৫ ম্যাচে চার ফিফটিতে ৫১৬ রান করে। শান্তর এই পারফরম্যান্স তাকে তামিম ইকবালের যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবেই প্রমাণ করছে।

২০১৬ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের মূল ওপেনার ছিলেন শান্ত। তার মধ্যে অমিত সম্ভাবনার কথা বলেছেন ক্রিকেটের অনেকেই। সবচেয়ে বেশি শান্তকে সমর্থন দিয়েছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর হিসেবে তার থাকাটা শান্তর দলে থাকা নিশ্চিত করেছিল। শুরুতে টেস্টের জন্য শান্তকে পাকাপাকিভাবে জাতীয় দলে রাখা হয়। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সেঞ্চুরিতে সেই সম্ভাবনার শুরুটা দেখিয়েছিলেন শান্ত। তবে ওই ইনিংসের পর থেকেই ব্যাটে রান খরা। এর মাঝে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলেও শান্তকে নিয়মিত করা হয়। ঘটা করে টেস্টের জন্য নির্দিষ্ট এক ব্যাটারকে ওয়ানডে ও পরে টি-টোয়েন্টিতেও টেনে আনা সহজভাবে নেয়নি কেউই। তার ওপর শান্তর রান খরা এই ব্যাটারকে নিয়ে শুরু করে কঠোর সমালোচনা। সব ঝড় উপেক্ষা করে দলে টিকে ছিলেন। সবশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে তার উপস্থিতিও কটাক্ষে পড়ে। কিন্তু আসরে শান্তর পারফরম্যান্স সবকিছুর হয়ে জবাব দেয়।

শান্ত নিজেও প্রস্তুত ছিলেন জবাব দেওয়ার জন্য। গত দুই বছরে সমালোচনার সব কিছুকেই মুখবুজে সহ্য করেছেন। এই বিপিএলের শুরুতে আক্ষেপ করে বলেছিলেন, ‘এখন মনে হয় আমি আমার দেশের বিরুদ্ধে খেলছি।’ মনের কষ্ট সামলে শুধু ব্যাটকেই বেছে নেন নিজের হয়ে কথা বলার মাধ্যম হিসেবে। আর সেই চেষ্টায় শতভাগ সফল শান্ত। এই আসরে তার ব্যাট থেকে আসা ৫১৬ দারুণ এক অর্জন যা আগে কোনো বাংলাদেশি করতে পারেননি। এই প্রথম বিপিএলের এক আসরে ৫০০ পার করে বিপিএলে দ্বিতীয় সেরা রান সংগ্রাহক হয়েছেন। এর আগে ৪৯১ রান করা মুশফিককে টপকে বাংলাদেশিদের মধ্যে শীর্ষে উঠলেন শান্ত। তামিম ও মুশফিকের পর তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে এক আসরে সর্বোচ্চ রান করার গৌরবও এখন তার। আর বিপিএলে এক আসরে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় শান্তর ওপরে শুধু ৫৫৮ রান করা রাইলি রুশো।  

বিশ্বকাপের পর বিপিএল, দারুণ দুটি আসর কাটিয়ে সমালোচনাগুলো ভুলে যেতে চাইছেন শান্ত। এখন শুধু সামনে তাকিয়ে বাংলাদেশের জন্য এমন ভালো ফর্ম করে যাওয়ার ইচ্ছা এই ব্যাটারের। ফাইনালে আগের দিন বলছিলেন, ‘খুব বেশি যে চিন্তা করেছি বাইরের জিনিস নিয়ে তা নয়। আমার মতো করে চেষ্টা করেছি কীভাবে উন্নতি করা যায়, কোথায় ঘাটতি আছে। জিনিসগুলো নিয়ে কাজ করছি। কীভাবে রেগুলার রান করা যায় সেটাই ছিল লক্ষ্য। আলহামদুলিল্লাহ এখন সফল। সামনে যেন এটা কন্টিনিউ করতে পারিএটাই মূল লক্ষ্য।’

এর আগেও শান্ত বিপিএলে ভালো করেছিলেন। খুলনা টাইগার্সের হয়ে এক আসরে ১২ ম্যাচে ৩০৮ তার সর্বোচ্চ ছিল। ওই আসরেই তামিম ইকবালের পর বিপিএলে সেঞ্চুরি করা দ্বিতীয় বাংলাদেশি হন শান্ত। তবে এবার ছাড়িয়ে গেলেন নিজেকেও। শিরোপা জয় তো দলীয় লক্ষ্য হিসেবে থাকবেই; পাশাপাশি ব্যক্তিগত লক্ষ্যকে দলীয় শক্তিতে রূপান্তর করতে চেয়েছেন শান্ত, ‘অবশ্যই শিরোপা তো...একজন খেলোয়াড় হিসেবে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের চেয়ে আমার কাছে দলীয় ফল বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ট্রফি জেতাও আমার ক্যারিয়ারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, বলতে পারব যে আমি ওই দলের সঙ্গে ছিলাম। আমি হয়তো ভবিষ্যতে বলতে পারব। দল যতক্ষণ পর্যন্ত ভালো করছে, সেটাই আমার কাছে বড় তৃপ্তি। ব্যক্তিগত পারফর্ম নিয়ে চিন্তা করতেছি না।’

এবারের মৌসুমে তৃতীয় ম্যাচে ৬০ রান করেন। এর এক ম্যাচ পর আসরে নিজের সর্বোচ্চ ৮৯। দু’ম্যাচ পর ৫৭ আর ফাইনালের আগে দুটি চল্লিশোর্ধ্ব ইনিংস খেলার পর ফাইনালে করলেন ৬৪। সিলেট দলে বিদেশি কোচও ছিলেন না যে, বিশেষ কিছু জানতে পেরেছেন শান্ত। বরং প্রথমবার ব্যাটিং কোচ হিসেবে বিপিএলে কাজ করা সাবেক ক্রিকেটার তুষার ইমরানের সঙ্গেই উপভোগ করেছেন সময়টা, ‘তুষার ভাইয়ের সঙ্গে তো এই প্রথম কাজ করা হচ্ছে। তিনি ভালো কাজ করেছেন এবং আশা করব সামনে আরও ভালো কাজ করবেন। আমি উপভোগ করেছি উনার সঙ্গে কাজ করে।’

শান্ত শুধু বিপিএল নয়; এখন নিজের ব্যাটিংটাই উপভোগ করছেন। এই উপভোগ শতগুণ বাড়বে দলের হয়ে শিরোপা জিতলে। সিলেট এই প্রথম ফাইনালে, নিজে দুবার ফাইনাল হেরেছিলেন কিন্তু নতুন দলের হয়ে শিরোপা জিতে নতুন দলের সঙ্গে নিজেকেও বিপিএল ট্রফি উপহার দিতে চান শান্ত। 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত