মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রধানমন্ত্রী

নিজের জন্য নয়, মানুষের ভাগ্য গড়তে রাজনীতিতে এসেছি

আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২:০৮ পিএম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করতে এসেছি, নিজের ভাগ্য গড়ার জন্য নয়। দেশের মানুষের ভাগ্য গড়ার জন্য, সেটাই আমার লক্ষ্য।

রোববার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে মিরপুর-কালশী ফ্লাইওভার ও ইসিবি চত্বর থেকে মিরপুর পর্যন্ত ৬ লেনে উন্নীত হওয়া সড়কের উদ্বোধন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার দেশের অর্থ অন্যকে দিয়ে সেখান থেকে দুর্নীতি করব এই মানসিকতা আমাদের নেই। সেই শিক্ষা আমার বাবা-মা আমাকে দেয়নি। তাই আমি বলেছিলাম প্রমাণ করতে হবে যে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতি হয়েছে। এবং বিশ্ব ব্যাংকের টাকা দিয়ে করবো না, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করবো।

শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ বিরাট চ্যালেঞ্জ ছিল। দুর্নীতির মিথ্যা অপবাদ দিতে চেয়েছিল। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করার প্রতিজ্ঞা করি। আমি ধন্যবাদ জানাই আমার দেশের মানুষকে। তারা আমার পক্ষে ছিল। আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে, আমরা ইচ্ছা করলে পারি।

তিনি বলেন, যে কথা ‘জাতির পিতা ৭ মার্চের ভাষণে বলেছিলেন বাঙালিকে কেউ দাবাইয়া রাখতে পারবা না। এটাই ছিল বঙ্গবন্ধুর কথা, কেউ পারেনি, পারবেও না, ইনশাআল্লাহ।’

তিনি বলেন, আজকে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। এই ঢাকা শহরসহ সারা বাংলাদেশে আজকে ব্যাপক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন আমরা করছি। মেট্টোরেল চালু হয়েছে, কমিউটার রেলওয়ে, ভূগর্ভস্থ টানেল। এখন পাতাল রেল নির্মাণেরও পদক্ষেপ নিয়েছি আমরা। ঢাকা শহরের চারদিকে লিংক রোড তৈরি করবো আমার।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা শহরের চারপাশে যে নদী আছে, তার নাব্যতা ফিরিয়ে এনে নৌপথ চালু করারও পরিকল্পনা রয়েচে আমাদের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৯৬ সালে আমরা প্রথম সরকার গঠন করি। তখন ১৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হত। ৪০ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য ঘাটতি ছিল। আমরা দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করি। বিদ্যুৎ উৎপাদন ৪৩০০ মেগাওয়াটে উন্নীত করি। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের পথে আমরা এগিয়ে যাই।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত