রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

কাবরেরার রাডারে মাঠের নিয়মিতরা

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২:১০ এএম

লিগের খেলাগুলো বিভিন্ন মাঠে ঘুরে ঘুরে দেখছেন স্প্যানিশ কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। দেখছেন আর দুশ্চিন্তা বাড়ছে। কাদের নিয়ে শুরু করবেন নতুন পথচলা? প্রথম বছরে কোচের আমলনামা ভালো নয়। তার অধীনে গত বছর বাংলাদেশ আট ম্যাচে পাঁচটা হেরেছে, দুটি ড্র করেছে আর জয় মাত্র একটিতে। মাঠে বসেই কাবরেরার শেষ স্কোয়াডের ফুটবলারদের ঘুমিয়ে থাকা দেখেছেন। বিশেষ করে স্বীকৃত ফরোয়ার্ডরা একেবারেই ফর্মে নেই। জাতীয় দলের বাইরের দু-চারজনও যে খুব ভালো কিছু করে ফেলেছে তাও নয়। তো সমাধানটা পাবেন কোত্থেকে? কাবরেরা অবশ্য আশাবাদী মানুষ। বিরুদ্ধ স্রোতে ভেসেও তিনি খুঁজে পেতে চান ভালো কিছুর সন্ধান।

লিগের প্রথমপর্ব, স্বাধীনতা কাপ ও ফেডারেশন কাপের পারফরম্যান্স প্রায় বেশিরভাগই মাঠে বসে দেখেছেন কোচ। সেই পর্যবেক্ষণ থেকে জানালেন একটা নতুন বাছাই পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছেন, ‘সবক’টি ম্যাচ আমরা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। একটা সুনির্দিষ্ট বাছাই পরিকল্পনা রয়েছে। আমাদের ভাবনার সঙ্গে যারা মানিয়ে নিতে পারবে, তারাই দলে থাকবে। অনেকেই আছে যারা জাতীয় দলের দায়িত্ব নিতে তৈরি।’ ফরোয়ার্ডদের পায়ে গোল নেই এটা বাংলাদেশের পুরনো ব্যামো। এর থেকে মুক্তি পেতে কাবরেরার চাওয়া গোলের দায়িত্বটা নিক দলের সবাই, ‘আমি বিশ্বাস করি গোল করার দায়িত্বটা দলের প্রত্যেকের। কেবলমাত্র স্ট্রাইকারদের নয়। আমাদের অনেক ভালোমানের উইঙ্গার ও মিডফিল্ডার আছে যারা গোল করা ও করানোর দক্ষতা রাখে। সেট পিস থেকে গোল করার সক্ষমতাও আমাদের আছে। আমরা যদি ট্রেনিংয়ে আমাদের কাজগুলো ঠিকঠাক করতে পারি, খেলার একটা মডেল গড়ে তুলতে পারি, গোল আসবেই।’

আগামী মাসে সিলেটে ব্রুনেই ও সিশেলসকে নিয়ে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট খেলবে বাংলাদেশ। কাবরেরা নতুন অনেককেই পরখ করে দেখার ইঙ্গিত দিয়েছেন, ‘লিগে অনেক ভালোমানের তরুণ ও প্রতিভাবান ফুটবলার দেখেছি। যারা বেশিরভাগ ম্যাচেই খেলেছে এবং খুব ভালো পারফরম্যান্স করেছে। আমরা তাদেরই নেব, যারা বিশ্বাস করে জাতীয় দলকে কিছু দিতে পারব।’ বোঝাই যাচ্ছে কোচের রাডারে আছেন নিয়মিত খেলা ফুটবলাররা। সেক্ষেত্রে কপাল পুড়তে পারে অনেক নামি ফুটবলারের। যারা খেলার চেয়ে সাইড বেঞ্চেই বেশি কাটিয়েছেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত