বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রশংসায় ভাসছেন রানী মুখার্জি

আপডেট : ১৮ মার্চ ২০২৩, ০১:১০ এএম

‘রানী মুখার্জি ভালো অভিনেত্রী, এ কথা আমরা সবাই জানি, কিন্তু ছবিটি দেখতে দেখতে মনে হচ্ছিল রানী সবটা উজাড় করে দিয়েছেন।’ ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এভাবেই রানীর নতুন ছবি ‘মিসেস চ্যাটার্জি ভার্সেস নরওয়ে’ দেখে প্রশংসায় ভাসাচ্ছে। গতকাল প্রিমিয়ারে ছবিটি দেখে নীতু সিং, সুভাষ ঘাই, ক্যাটরিনা কাইফ, কিয়ারা আদভানি, ভিকি কৌশল, অর্জুন কাপুরের মতো তারকারাও আবেগাপ্লুত। আজ ভারতের সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘মিসেস চ্যাটার্জি ভার্সেস নরওয়ে’। ছবিটির জন্য রানী ওজন বাড়িয়েছিলেন, ঢাকেননি মুখের দাগ। কারণ মিসেস চ্যাটার্জি হয়ে উঠতে হবে। ছবিতে দেবিকা চট্টোপাধ্যায় নামে এক মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘মারদাঙ্গি’ অভিনেত্রী। এমন চ্যালেঞ্জিং একটা চরিত্র পেয়ে প্রধান ভাবনাটা কী ছিল? টাইমস অব ইন্ডিয়ার এমন প্রশ্নের উত্তরে রানী বলেন, ‘প্রথমে গল্পটার আবেগ, চরিত্রটির আবেগের যে ওঠাপড়া, সেটার সঙ্গে একাত্ম হয়েছিলাম। তারপর গুরুত্বপূর্ণ ছিল, দেবিকাকে দর্শকদের সামনে কীভাবে আনা হবে। ওকে কেমন দেখতে লাগবে, কেমন আচরণ হবে এসব।’ এক যুগ আগে সাগরিকা চট্টোপাধ্যায় এবং অনুরূপ ভট্টাচার্য নামে এক দম্পতির সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনা অবলম্বনেই তৈরি হয়েছে ছবি। সন্তানকে ফিরে পেতে নরওয়ে সরকারের সঙ্গে মামলায় জড়িয়ে পড়েছিলেন ভারতীয় নাগরিক সাগরিকা। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে, তিনি তার সন্তানদের ঠিকমতো দেখাশোনা করতে পারছেন না। তাই শিশুদের নিরাপত্তার স্বার্থে সেই দেশের সরকার সাগরিকার দুই সন্তানকে কোলছাড়া করে। ২০১১ সালে ঘটে যাওয়া এই ঘটনা শুনে নড়ে বসেছিল ভারত সরকারও। রানী বলেন, ‘আমরা যখন দেখি বিদেশে কোনো ভারতীয় পরিবার থাকছে; ধরেই নিই, সুযোগ-সুবিধার দিক থেকে তারা ভালো জায়গায় আছে, সুখী আছে। কিন্তু এই যে একটা ভারতীয় বাঙালি পরিবার, এমন কষ্টের মধ্য দিয়ে গেছে এটা জনসমক্ষে আনা দরকার ছিল।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত