মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

আপডেট : ২৭ মার্চ ২০২৩, ০৫:৪৭ পিএম

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ (ইবিএইউবি)-এ যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২৩ উদযাপন উপলক্ষে সকাল ৬.০৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

সকাল ৮.৩০ ঘটিকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নেতৃত্বে সকল শিক্ষক, কর্মকর্তাদের নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন অফিস প্রাঙ্গনে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীরদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন।

পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে দিবসটি উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তিলাওয়াত, গীতা পাঠ ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন এবং শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার জনাব মো. মনিরুল ইসলাম রিন্টুর সভাপতিত্বে উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এ বি এম রাশেদুল হাসান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মো. দেলোয়ার হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও কৃষি অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মো. আশরাফুল আরিফ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় উপাচার্য ১৯৭১ সালে বাঙালিদের ওপর পাকিস্থান হায়েনা কর্তৃক অত্যাচারের ভয়াবহ চিত্র সবার সামনে তুলে ধরেন ও স্বাধীনতার চেতনা সবার মনে জাগ্রত রেখে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানান। তিনি সকলকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তথাকথিত কিছু ইতিহাসবিদের কারণে আমাদেরকে সঠিক ইতিহাস জানতে দেওয়া হয়নি। আল্লাহর কৃপায় বর্তমান সরকারের উদ্যোগের কারণে বর্তমান প্রজন্ম ও পরের প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানার সুযোগ পাচ্ছে।

তিনি বলেন, অনেক পরিবার স্বাধীনতা যুদ্ধে তাদের অনেক আপনজনকে হারিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জেনে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনারবাংলা গড়তে মহান নেতা বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনাকে সহযোগিতা করি। সবশেষে মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ যারা দেশের জন্য প্রাণ উৎসর্গ করেছেন তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে, জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলে তিনি তার বক্তব্য শেষ করেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (আইকিউএসি) ও ব্যবসা প্রশাসন অনুষদ এর ডীন ড. মো. শামীমুল হাসান, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, গ্রুপ ক্যাপ্টেন (অব.) জনাব মো. নুরুল ইসলাম, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. শাহারিয়ার কবির, প্রোগ্রাম উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও আইন বিভাগের প্রধান এস এম শহিদুল ইসলাম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের বিভাগীয় প্রধানসহ সব শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

সবশেষে অনুষ্ঠানের সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত