শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বিজয় এক্সপ্রেস দুর্ঘটনর কারণ নাশকতা নয়

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২৪, ১২:৩৫ পিএম

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে হাসানপুর রেল স্টেশনের অদূরে বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের ৯টি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার দুটি কারণ খুঁজে পেয়েছে তদন্ত কমিটি। যদিও প্রথমে রেলপথমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, নাশকতার কারণে বিজয় এক্সপ্রেসের ৯টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। তবে তদন্ত কমিটি ও রেলওয়ে পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে নাশকতা খুঁজে পায়নি। তাদের পাওয়া কারণ দুটি হলো- চুরির উদ্দেশ্যে রেললাইনের বিয়ারিং প্লেট (রেললাইনের সঙ্গে স্লিপার সংযুক্ত করার পাত) খুলে নেওয়া এবং রেলসেতুর ত্রুটি।

রেলওয়ের উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটির সদস্য এবং রেলওয়ে পুলিশের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ দুটি কারণ জানা যায়।

১৭ মার্চ বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন দুর্ঘটনার পর রেলওয়ের পক্ষ থেকে বিভাগীয় কর্মকর্তা ও দপ্তরপ্রধানদের নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

রেল পূর্বাঞ্চলের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলামকে প্রধান করে চার সদস্যদের একটি কমিটি গঠন করা হয়। অপরদিকে বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আনিসুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের আরেকটি কমিটি গঠন করা হয়। এ দুর্ঘটনার ১৫ দিন পার হলেও দুটি কমিটির কোনোটিই গতকাল পর্যন্ত তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়নি।

দুর্ঘটনার পরদিন রেলওয়ের পিডব্লিউ লিটন চাকমা বাদী হয়ে লাকসাম রেলওয়ে থানায় একটি মামলা করেন। ট্রেন দুর্ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ১৯ মার্চ চার কিশোরকে হেফাজতে নেয় লাকসাম পুলিশ। পরে তাদের গাজীপুর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে (সংশোধনাগার) পাঠানো হয়।

তদন্ত কমিটির প্রধান মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, তদন্ত কার্যক্রমের প্রাথমিক কাজ শেষ করেছেন। দুটি কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছে। প্রধান কারণ হচ্ছে, রেললাইন থেকে বিয়ারিং প্লেট খুলে ফেলা। আর নাশকতার উদ্দেশ্যে বিয়ারিং প্লেটগুলো খুলে ফেলা হয়েছে বলে মনে হয়নি। চুরির উদ্দেশ্যে কয়েকজন কিশোর তিনটি বিয়ারিং প্লেট খুলে নেয়। অন্য কারণটি হচ্ছে রেলসেতুর স্লিপারের অনেকগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। রক্ষণাবেক্ষণের অভাব কিংবা সংস্কার না করার কারণে এগুলো নষ্ট হয়েছে। ওই রেলসেতু ট্রেনের বগিগুলোর ভার (লোড) নিতে পারেনি। ফলে লাইনচ্যুত হয়েছে। তদন্তের আরও কিছু কাজ বাকি রয়েছে। দ্রুত প্রতিবেদন জমা দেবেন তারা।

রেলওয়ের চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী বলেন, ট্রেন দুর্ঘটনার বিষয়টি এখনো তদন্তাধীন। তবে প্রাথমিকভাবে নাশকতার কিছু পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত