শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পটুয়াখালীতে ‘গরিবের ইফতারখানা’

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২৪, ০৫:২৫ পিএম

পটুয়াখালী শহরে প্রতিদিন প্রায় ২০০-২৫০ জন অসহায় ও ছিন্নমূল রোজাদার মানুষদের জন্য ইফতারের আয়োজন করেন ‘পটুয়াখালীবাসী’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। পবিত্র মাহে রমজান মাসের প্রথম দিন থেকেই শহরের সার্কিট হাউজ সংলগ্ন ঝাউতলা এলাকায় ফুটপাতে মাদুর বিছিয়ে রোজাদার মানুষদের জন্য এ ইফতারির আয়োজন করা হয়। প্রথম দিনে ৫০ জন খেটে খাওয়া রোজাদার ব্যক্তির জন্য এ আয়োজন করা হলেও এখন তা বেড়ে ২০০ ছাড়িয়ে গেছে। এভাবে পুরো রমজান মাসজুড়ে এ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির কর্তাব্যক্তিরা।

ইফতার করতে আসা রোজাদাররা জানান, বাজারে ইফতারির যে দাম তাতে খেটে খাওয়া দিনমজুরের কপালে ভালো ইফতারি জোটার কথা নয়। তবে এই ইফতারখানা আসলে তারা মনভরে ইফতার করতে পারে।

তারা আরও জানান, বাকি রোজাগুলোতে যেনো এভাবেই ব্যবস্থা করা হয়। তাহলে তাদের ইফতার নিয়া কোনো চিন্তা করতে হবে না।

আয়োজকরা জানান, প্রতিদিন খেটে খাওয়া দিনমজুর ও পথচারিদের জন্য ইফতারির আয়োজন করা হয়। শহরের বিত্তবান ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ইফতারির এ আয়োজন করা হয়। পানি, খেজুর, ছোলা বুট, পিয়াজু, আলুর চপ, জুস, কলা, জিলাপী, শসা ও মুড়িসহ মোট ১১টি আইটেমের ইফতারি রয়েছে এখানে। সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবী সদস্যরা উপস্থিত থেকে আগত পথচারী ও গরিব-অসহায় রোজাদার মানুষদের ইফতার খাওয়ান। এছাড়া রোজাদার ব্যক্তিদের জন্য অজুখানা ও নামাজের ব্যবস্থা করে দিয়েছে পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ। যাতে রোজাদার লোকজন ইফতারি সেরে সেখানে মাগরিবের নামাজ আদায় করতে পারেন। 

এ ব্যাপারে পটুয়াখালীবাসী সংগঠনের সভাপতি মো. মাহমুদ হাসান রায়হান জানান, সাম্প্রতিক সময়ে দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষগুলোর পক্ষে ইফতারি কিনে খাওয়া সম্ভব নয়। তাই খেটে খাওয়া দিনমজুর ও পথচারি রোজাদার মানুষদের কথা ভেবে শহরের বিত্তবান ব্যক্তিদের সহায়তায় আমরা এই ‘গরিবের ইফতারখানা’র আয়োজন করেছি এবং পুরো রমজান মাসজুড়ে প্রতিদিন এ আয়োজন চলবে।

পটুয়াখালীর পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, এটি একটি সুন্দর ও ব্যতিক্রমী আয়োজন। ধন্যবাদ জানাই আয়োজকদের। তাই পৌরসভার পক্ষ থেকে আয়োজকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত