সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ডিজেলের দাম লিটারে কমল সোয়া ২ টাকা

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪৮ এএম

প্রতি লিটার ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ১০৮ দশমিক ২৫ থেকে ২ দশমিক ২৫ টাকা কমিয়ে ১০৬ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে অকটেন ১২৬ এবং পেট্রোলের দাম লিটারপ্রতি ১২২ টাকা অপরিবর্তিত রয়েছে। এপ্রিল থেকে নতুন দর কার্যকর হবে বলে গতকাল রবিবার জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ৪৭০ কোটি ডলার ঋণের শর্ত হিসেবে সরকার গত ২৯ ফেব্রুয়ারি জ্বালানি তেলের স্বয়ংক্রিয় মূল্য নির্ধারণ পদ্ধতি ঘোষণা করে। এ প্রক্রিয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির দাম কমলে দেশে কমবে আবার বাড়লে দেশের বাজারেও বাড়বে। এ স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে প্রথম জ্বালানি তেলের মূল্য সমন্বয় করা হয় গত ৭ মার্চ। তখন ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারপ্রতি ৭৫ পয়সা, অকটেনে ৪ এবং পেট্রোলের ৩ টাকা কমানো হয়।

দেশে ব্যবহৃত জ্বালানি তেলের ৭৫ শতাংশই ডিজেল। এটি সাধারণত কৃষি সেচে, জেনারেটর এবং পরিবহনে ব্যবহার করা হয়। অন্যান্য সময় জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি করা হলেও এবার এক মাসের মধ্যে দু’দফায় ডিজেলের দাম লিটারপ্রতি ৩ টাকা কমানো হলেও আপাতত পরিবহনে যাত্রী ভাড়া কমানোর কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

ডিজেলের দাম কমলে বা বাড়লে পরিবহন ভাড়া কীভাবে নির্ধারণ করা হবে তা জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) একজন পরিচালক দেশ রূপান্তরকে বলেন, যাত্রীদের ভাড়া নির্ধারণের বিষয়টি সরকারের ওপর নির্ভর করে। এ ক্ষেত্রে বিআরটিএ শুধু সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করে। এখন পর্যন্ত সরকারের কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে গতকাল বিকেলে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এবিএম আমিন উল্লাহ নুরী দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘ভাড়া নির্ধারণসংক্রান্ত একটা কমিটি আছে আমাদের। বিআরটির চেয়ারম্যানকে বলেছি, কমিটির বৈঠক ঢেকে বিষয়টি পর্যালোচনা করা। সাধারণ মানুষের বিষয়টি বিবেচনা করেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জ্বালানি বিভাগ বলছে, প্রতিবেশী দেশ ভারতের কলকাতায় বর্তমানে ডিজেল লিটারপ্রতি ৯০ দশমিক ৭৬ রুপি বা ১৩০ দশমিক ৬৯ টাকায় (১ রুপি = ১ দশমিক ৪৪ টাকা) এবং পেট্রোল ১০৯ দশমিক ৯৪ রুপি বা ১৫৮ দশমিক ৩১ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যা বাংলাদেশ থেকে বেশি।

কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘দাম কমানোর লাভ মূলত পাবে ধনী ব্যক্তিরা। ডিজেলের সামান্য দাম কমায় পরিবহন ভাড়া কমবে না, মূলত পরিবহন ব্যবসায়ীরা লাভ করবে।’

জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ম. তামিম বলেন, ‘প্রাথমিক পর্যায়ে পেট্রোল ও অকটেনের মূল্য সমন্বয় ঠিক আছে। কিন্তু ডিজেলের ক্ষেত্রে যদি যাত্রী ও পণ্যবাহী পরিবহনের ক্ষেত্রে ভাড়া স্বয়ংক্রিয়ভাবে ওঠানামার ফর্মুলা প্রতিষ্ঠা করতে পারে তাহলে ডিজেলের দাম সমন্বয় করা যেতে পারে। তা না হলে ডিজেলের দাম সমন্বয় করে লাভ নেই। কারণ ডিজেলের দাম কমলে যদি ভাড়া না কমে তাহলে বাড়তি টাকাটা তো ব্যবসায়ীদের পকেটে চলে যাবে। সাধারণ মানুষ এর সুবিধা পাবেন না। ব্যবসায়ীদের পকেটে না গিয়ে বরং এ টাকা সরকারের কাছে থাকুক। তাতেও এ টাকা অন্য খাতে ব্যবহার করতে পারবে সরকার। এতে জনগণ কোনো না কোনোভাবে এর সুবিধা পাবেন।’

তার মতে, সরকার নামমাত্র দাম কমিয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারের বর্তমান তেলের যা দাম সে অনুসারে আরও কমা উচিত ছিল। কী পদ্ধতিতে হিসাব করেছে তা স্পষ্ট নয়। বিপিসির আর্থিক বিষয়ে স্বচ্ছতা নিয়ে আগে থেকেই প্রশ্ন রয়েছে।

বিপিসির লোকসান হচ্ছে, এমন যুক্তিতে ২০২২ সালের ৫ আগস্ট দেশে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম ৪২ থেকে ৫২ শতাংশ বাড়ানো হয়। ওই সময় ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারপ্রতি ৮০ থেকে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা করা হয়। লিটারপ্রতি পেট্রোলের দাম ৮৬ থেকে ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা করা হয়। অকটেনের দাম ৮৯ থেকে ৪৬ টাকা বাড়িয়ে করা ১৩৫। ব্যাপক সমালোচনার মুখে ২০২২ সালের ৩০ আগস্ট এ চার ধরনের জ্বালানির দাম লিটারপ্রতি ৫ টাকা করে কমানো হয়। অর্থাৎ ৫০ শতাংশ বাড়িয়ে মাত্র ৩-৪ শতাংশ কমানো হয়েছিল।

জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ড. ইজাজ হোসেন দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘দাম কমানোর প্রক্রিয়াটি আরও ভোক্তাবান্ধব হওয়া উচিত। বর্তমানে বিশ্ববাজারে যা দাম তাতে লিটারপ্রতি ডিজেলের দাম হওয়া উচিত ১০০ টাকার মতো।’ তিনি পেট্রোলিয়াম পণ্যের ওপর অতিরিক্ত কর প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে মিল রেখে প্রতি মাসে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম নির্ধারণ করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন। একই প্রক্রিয়ায় জ্বালানি তেলের মূল্য নির্ধারণ করছে জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ। যদিও এ মূল্য নির্ধারণের একক এখতিয়ার এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের হওয়া উচিত বলে মনে করেন জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ও খাতসংশ্লিষ্টরা।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত