রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বিরোধিতার মুখে কঙ্গনা

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫৭ এএম

ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম প্রার্থী তালিকা রবিবার রাতে প্রকাশ্যে আনে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। বিজেপির পঞ্চম প্রার্থী তালিকায় বড় চমক কঙ্গনা রনৌত। এবার তিনি পদ্মফুলের হয়ে লড়াইয়ের সুযোগ পেয়েছেন হিমাচলের মান্ডি আসন থেকে। এরই মধ্যে প্রচারণা শুরু করেছেন। তবে নির্বাচনী আসনে বড় চ্যালেঞ্জের মুখেও পড়েছেন কঙ্গনা। কঙ্গনাকে প্রার্থী করার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় বিজেপি নেতারা।

মান্ডি লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির বিদ্রোহী এবং রাজ পরিবারের প্রভাব কঙ্গনা রনৌতের পথ কঠিন করে তুলতে পারে। সাবেক বিজেপি রাজ্য সভাপতি, তিনবারের এমপি এবং কুল্লুর রাজপরিবারের সদস্য মহেশ্বর সিং এই মনোনয়নের বিরোধিতা করছেন। তিনি হাইকমান্ডকে কঙ্গনা রনৌতকে প্রার্থী করার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছেন। মহেশ্বর সিং ২০২২ সালের বিধানসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেছিলেন।

গত শুক্রবার এক পথসভা দিয়ে কঙ্গনা তার নির্বাচনী প্রচার শুরু করার সঙ্গে সঙ্গে বিজেপির জ্যেষ্ঠ নেতা মহেশ্বর সিং হাইকমান্ডকে দলের জন্য ‘কোনো অবদান’ না রাখা এক অভিনেত্রীকে প্রার্থী করার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার অনুরোধ করেছেন। তিনি দাবি করেছেন, তাকেই টিকিট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল দল।

মহেশ্বর সিং গতকাল শনিবার বার্তা সংস্থা পিটিআইকে বলেন, ‘কঙ্গনা দলে কোনো অবদান রাখেননি এবং মান্ডির লোকেরা সোচ্চার হয়ে উঠেছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার দাবি জানাচ্ছে। সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার বিষয়ে দলের হাইকমান্ডের সঙ্গে আলোচনা চলছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাকে আগে টিকিটের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল।’

কঙ্গনা রনৌতকে সমর্থন দিয়েছেন কারগিল যুদ্ধের নায়ক ও বিজেপি নেতা খুশল ঠাকুর। তিনি ২০২১ সালের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে কংগ্রেসের প্রতিভা সিংয়ের কাছে ৭ হাজার ৪৯০ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। কঙ্গনা বলেন, ‘আমি আমার গ্রামে একটি ছোট দেবী মন্দির তৈরি করেছি এবং মানালিতে একটি বাড়ি তৈরি করেছি। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে আমি সংগ্রাম ও কঠোর পরিশ্রম করেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটা এমন নয় যে আমার বাবা বা স্বামী মুখ্যমন্ত্রী, আর আমি রাজনীতিতে যোগ দিয়েছি।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত