রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘মনিটরিং সেল’ গঠনের দাবি রিহ্যাবের

আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫১ এএম

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে রড, সিমেন্ট, কেবলসহ প্রায় সব ধরনের নির্মাণসামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধির ফলে গভীর সংকটের মুখে পড়েছে আবাসন খাত। ঢাকায় ফ্ল্যাটের দাম আগে থেকেই সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে ছিল। নির্মাণসামগ্রীর দাম বাড়ায় মধ্যবিত্তের ফ্ল্যাট কেনা এখন দুঃস্বপ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে আবাসন খাত। এমন পরিস্থিতিতে নির্মাণসামগ্রীর দাম ও পণ্যের মান নির্ধারণে একটি ‘মনিটরিং সেল’ গঠনের দাবি জানিয়েছেন রিহ্যাব নেতারা। 

গতকাল বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুর সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ দাবি জানান রিহ্যাব নেতারা। মতবিনিময় সভায় রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট মো. ওয়াহিদুজ্জামান, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট লিয়াকত আলী ভূঁইয়া, ভাইস প্রেসিডেন্ট এম এ আউয়াল, মোহাম্মদ আক্তার বিশ্বাস, আবদুর রাজ্জাকসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

নেতারা জানান, ‘আগের শুরু হওয়া প্রকল্প নিয়ে গভীর সংকটে পড়েছেন অনেক ব্যবসায়ী। কারণ চুক্তির বাধ্যবাধকতার কারণে বর্তমানে নির্মাণসামগ্রীর দাম বাড়লেও ক্রেতার কাছ থেকে বাড়তি অর্থ আদায় করতে পারছেন না। এখন নির্মাণসামগ্রীর দাম যে হারে বাড়ছে, তাতে ফ্ল্যাটের ক্রেতাদের কাছে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়ছে।’

মূলত ডেভেলপাররা এলাকায় জমি-মালিকদের সঙ্গে অংশীদারত্বের ভিত্তিতে প্রকল্প হাতে নেন এবং নির্ধারিত দামে প্রকল্প বাস্তবায়নের শুরুতেই তা বিক্রি হয়। ক্রয়-বিক্রয় চুক্তি থাকায় এখন নির্মাণসামগ্রীর দাম বাড়লেও ফ্ল্যাটের দাম বাড়ানো যায় না। আবার যেসব ফ্ল্যাট অবিক্রীত থাকে, সেগুলোর দাম বেশি হওয়ায় ক্রেতাও পাওয়া যায় না। এমন পরিস্থিতিতে আবাসন খাত আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন সবচেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জের মুখে। অনেক সময় দেখা যায়, আমদানি করা কাঁচামালের দাম বিদেশে কমলেও দেশে কমে না। কিন্তু ওখানে একটু বাড়লে দেশে লাফ দিয়ে দাম বাড়ানো হয়। আবার দেশে নির্মাণসামগ্রীর মান যাচাইয়ে কার্যকর তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই কিন্তু নিরাপত্তার স্বার্থে মান যাচাই করা খুবই জরুরি।

রিহ্যাব নেতারা নির্মাণসামগ্রীর দাম ও পণ্যের মান বজায় রাখার জন্য মন্ত্রণালয়, রিহ্যাব, এফবিসিসিআই এবং সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারের সমন্বয়ে একটি ‘মনিটরিং সেল’ গঠন করার দাবি জানান। যে সেল থেকে পণ্যের দাম ও মান নির্ধারণ করা হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী রিহ্যাবের দাবির বিষয়ে অবগত হয়ে যৌক্তিক দাবি পর্যালোচনা করে বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত