শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সুদমুক্ত জীবন গড়ি

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৫ এএম

জেনে রাখা ভালো : যে ঋণ ঋণদাতার জন্য কোনো ধরনের মুনাফা বয়ে আনে সেটাই সুদ। সব ধরনের সুদই হারাম। ইন্টারেস্ট, মুনাফা, লাভ, ফিন্যানশিয়াল চার্জ অথবা সুদ, যে নামেই তাকে ডাকা হোক। ধ্বংসাত্মক যত মহাপাপ আছে তার মধ্যে অন্যতম সুদ। পবিত্র কোরআনে সুদের ক্ষেত্রে যত কঠোর ভাষা প্রয়োগ করা হয়েছে অন্য কোনো গোনাহর ব্যাপারে এমনটি করা হয়নি।

কোরআন থেকে : ‘হে মুমিনরা! আল্লাহকে ভয় করো এবং তোমরা যদি প্রকৃত মুমিন হয়ে থাকো তবে সুদের যে অংশই (কারও কাছে) অবশিষ্ট রয়ে গেছে, তা ছেড়ে দাও। তবুও যদি তোমরা (তা) না করো, তবে আল্লাহ ও তার রাসুলের পক্ষ থেকে যুদ্ধের ঘোষণা শুনে নাও। আর তোমরা যদি (সুদ থেকে) তাওবা করো, তবে তোমাদের মূল পুঁজি তোমাদের প্রাপ্য। তোমরাও (কারও প্রতি) জুলুম করবে না এবং তোমাদের প্রতিও জুলুম করা হবে না।’ -সুরা বাকারা, আয়াত ২৭৮-২৭৯

হাদিস থেকে : ‘যে সুদ খায়, যে সুদ খাওয়ায়, যে সাক্ষী থাকে এবং যে ব্যক্তি সুদের হিসাব-নিকাশ বা সুদের চুক্তিপত্র ইত্যাদি লিখে দেয় সবার প্রতি রাসুলুল্লাহ (সা.) লানত করেছেন।’ -(সুনানে তিরমিজি ১২০৬) সুদ সত্তর প্রকার পাপের সমষ্টি। তার মাঝে সবচেয়ে নিম্নতম হলো আপন মায়ের সঙ্গে ব্যভিচার করার সমতুল্য।’ -মুসান্নাফে আবদুর রাজ্জাক ১৫৩৪৫

করব : সুদমুক্ত লেনদেন।

ছাড়ব : সুদি লেনদেন করা, সুদের হিসাব করা বা তাতে সাক্ষী থাকা।

মাসয়ালা : প্রতি মাসে সেলারি অ্যাকাউন্টে বেতনের অর্থ আসা মাত্র তা তুলে শরিয়া মুতাবেক পরিচালিত কোনো ব্যাংকে রেখে দেওয়া। যদি নিজের কাছে ক্যাশ রাখার কোনো নিরাপদ ব্যবস্থা থাকে সেটা আরও ভালো। কিন্তু এর পরও যদি বছর শেষে তার অ্যাকাউন্টে কোনো সুদ চলে আসে, তবে সেক্ষেত্রে ওই টাকা সে ব্যবহার করতে পারবে না। -ফতোয়া কাসেমিয়া

ভুল ধারণা : অনেকের ধারণা সুদের টাকা হাতে এলে তা দিয়ে কোনো মসজিদের টয়লেট ইত্যাদি বানাতে হয়, এটা ভুল ধারণা। কোনো অবস্থাতেই সেই টাকা মসজিদ, মাদ্রাসা বা কোনো জনকল্যাণমূলক কাজ যেমন : রাস্তাঘাট বা পাবলিক টয়লেট নির্মাণ ইত্যাদিতে খরচ করা যাবে না। -ইমদাদুল মুফতিন ৫৮৬

আমল : সুদি লেনদেন হয়ে গেলে দ্রুত তওবা করা। সুদদাতাকে সুদের টাকা ফিরিয়ে দেওয়া।

সুসংবাদ : ‘রমজান মাসের শুভাগমন উপলক্ষে জান্নাতের দরজাসমূহ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় এবং জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়। আর শয়তানকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করা হয়।’ -সহিহ বুখারি ১৮৯৯

উপকারিতা : অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির উত্তম মাধ্যম হলো ব্যবসা। আর সুদ হলো হারাম। সুদ থেকে নিজে বাঁচুন অন্যকে বাঁচান।

দোয়া : ঋণমুক্তির দোয়া, ‘আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজু বিকা মিনাল হাম্মি ওয়াল হাজানি, ওয়া আউজু বিকা মিনাল আজযি ওয়াল কাসালি, ওয়া আউজু বিকা মিনাল বুখলি ওয়াল জুবনি, ওয়া আউজু বিকা মিন দালায়াদ্দাইনি ওয়া গালাবাতির রিজাল।’ -তিরমিজি ৩৫৬৩

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত