শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

তেলের লরিতে আগুনে আরও একজনের মৃত্যু

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪১ এএম

সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের জোড়পুল এলাকায় তেল ভর্তি লরি উল্টে পাঁচ গাড়িতে আগুন লাগার ঘটনায় গতকাল বুধবার দুপুর পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪ জনে দাঁড়িয়েছে। সর্বশেষ মঙ্গলবার রাতে মো. সাকিব (১৫) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরের শতভাগ পুড়ে গিয়েছিল।

নিহত সাকিব বরগুনা সদর উপজেলার গৌরিচন্না গ্রামের মো. আবেদ আলীর ছেলে। সে তরমুজ ভর্তি ট্রাকের হেলপার (চালকের সহযোগী) ছিল। ট্রাকচালক হেলালের সঙ্গে বরগুনা থেকে তরমুজ নিয়ে গাজীপুরের দিকে যাচ্ছিল তারা।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার সকালে দগ্ধ অবস্থায় ৮ জনকে বার্ন ইউনিটে আনা হয়। তাদের মধ্যে হাসপাতালে আসার আগেই নজরুল ইসলাম নামে একজনের মৃত্যু হয়। বাকি সাতজনের মধ্যে হেলাল ও সাকিবের শরীরের ১০০ শতাংশ পোড়া ছিল। এই দুজনের মধ্যে ঘটনার দিনই রাত সাড়ে ৯টার দিকে ট্রাকচালক হেলাল হাওলাদারের মৃত্যু হয়। পরবর্তী সময়ে রাত ১টা ২০ মিনিটে ট্রাকের হেলপার সাকিবের মৃত্যু হয়।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে যারা চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের মধ্যে মিলন মোল্লার শরীরের ৪৫ শতাংশ, শিশু মীমের শরীরের ২০ শতাংশ, আল আমিনের ১০ শতাংশ, নিরঞ্জনের ৮ শতাংশ, আব্দুস সালামের ৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাদের চিকিৎসা চলছে।

স্থানীয় ট্রাক ও বাসচালকদের অভিযোগ, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের যত্রতত্র সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর নির্মাণকাজ পরিচালনা করায় প্রায়ই ছোট ছোট দুর্ঘটনায় পড়তে হয়। ইউটার্ন নির্মাণের জন্য সড়কের ওপর অস্থায়ী পিলার দিয়ে ব্যারিকেড দেওয়ার কারণে ভোররাতে তেলের লরির চালক সেটি বুঝতে না পেরে সেগুলোর ওপর দিয়ে গাড়ি উঠিয়ে দেন। এ সময় গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজকের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যাওয়ায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ মইনুল হাসান বলেন, মহাসড়কে ইউটার্ন নির্মাণের জন্য অস্থায়ীভাবে সিমেন্টের পিলার দেওয়া হয়েছিল। বিষয়টি সম্পর্কে চালকদের সচেতনতার জন্য লাল কাপড় দিয়ে সতর্কচিহ্নও দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনো একটি গাড়ি সেটি ভেঙে দিয়ে চলে যায়।

এদিকে দুর্ঘটনাকবলিত তেলের লরির চালকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে সাভার হাইওয়ে থানা পুলিশ। তদন্ত সাপেক্ষে এই মামলায় আসামির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. বাবুল আক্তার। 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত