বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

গরমে রোজ পাতে রাখুন করলা

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০৬ পিএম

তেতো হলেও অনেকের প্রিয় সবজি করলা। ভাজি বা ভর্তা করলার কদর অনেক। করলা রুচিবর্ধক সবজি। করলার ঔষধি গুণের কথা বলে শেষ করা যাবে না। নিয়মিত করলা খেলে রোগবালাই দূরে পালাবে। পুষ্টিবিদরা বলছেন, এ গরমে স্বস্তি দেবে করলা, শরীর সুস্থ রাখবে। 

প্রতি ১০০ গ্রাম করলায় আছে ২৮ কিলোক্যালরি, ৯২ দশমিক ২ গ্রাম জলীয় অংশ, ৪ দশমিক ৩ গ্রাম শর্করা, ২ দশমিক ৫ গ্রাম আমিষ, ১৪ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ১ দশমিক ৮ মিলিগ্রাম লোহা ও ৬৮ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি।

যেসব কারণে করলা খাবেন—

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: করলায় ভিটামিন এ, সি রয়েছে। এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারে। সংক্রমণ রুখতে সাহায্য করে। সর্দি, ফ্লু এবং সংক্রমণের মতো অসুস্থতার ঝুঁকি কমায়। সামগ্রিক সুস্থতা বজায় রাখে।

হার্টের সুস্থতা: করলাতে প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম, আয়রন, ভিটামিন সি থাকে, যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। করলা দিয়ে তৈরি খাবার হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে পারে।

শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ: করলা রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। করলার মধ্যে থাকা রাসায়নিক শরীরে গ্লুকোজের মাত্রা কমাতে পারে। ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।

ওজন হ্রাস: করলাতে খুব কম ক্যালোরি আর কার্বোহাইড্রেট থাকে। তাই এটি ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ। এতে এমন যৌগ রয়েছে যা চর্বি বিপাককে সাহায্য করতে পারে এবং হজমের উন্নতি করতে পারে। করলা অনেকক্ষণ পেট ভরা রাখতে সাহায্য করে। অতিরিক্ত খাবার তাগিদ কমিয়ে দেয়।

হজম শক্তি বাড়ায়: করলা পাচনতন্ত্রের সঠিক কার্যকারিতায় সহায়তা করে। এটিতে খাদ্যতালিকাগত ফাইবার রয়েছে, যা নিয়মিত মলত্যাগে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে। এনজাইমের নিঃসরণকে উদ্দীপিত করে বদহজম, ফোলাভাব এবং অন্যান্য হজম সংক্রান্ত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করতে পারে। হজমের সমস্যা সমাধানে উচ্ছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত