বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এলো আরও ১৩ বিজিপি

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০২:১৩ এএম

মিয়ানমারে চলমান সংঘাতের জের ধরে দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) আরও ১৩ সদস্য পালিয়ে এসেছেন। এ নিয়ে এখন  পর্যন্ত বিজিপির ২৭৪ জন সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিলেন।

গতকাল শুক্রবার ভোরে কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীতে নতুন করে বিজিপির এই ১৩ সদস্য এসে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের কাছে আত্মসমর্পণ করেন।

কোস্টগার্ড এসব বিজিপি সদস্যকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নের কাছে হস্তান্তর করে। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা দেশটির সেনা ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির ২৭৪ জন সদস্য এখন নাইক্ষ্যংছড়িতে রয়েছেন।

বিজিবির সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নের (১১ বিজিবি) জিম্মায় থাকা ২৭৪ জনের মধ্যে বিজিপি সদস্য ছাড়াও মিয়ানমারের সেনাসদস্যও রয়েছেন। এর মধ্যে মঙ্গলবার মধ্য রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ৪৬ জন পালিয়ে আসেন। মঙ্গলবার দিনে প্রবেশ করছিলেন ১৮ জন। আগের দিন সোমবার দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশফাঁড়ি সীমান্ত দিয়ে দুই সেনাসদস্য পালিয়ে আসেন। এর আগে রবিবার টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে আসেন বিজিপির আরও ১৪ সদস্য। এ ছাড়া বিভিন্ন সময় পালিয়ে আসা আরও ১৮০ জন সেখানে রয়েছেন। গত ৩০ মার্চ মিয়ানমার সেনাবাহিনীর তিন সদস্য নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। ১১ মার্চ আশ্রয় নেন আরও ১৭৭ জন বিজিপি ও সেনাসদস্য।

গত ফেব্রুয়ারির শুরুতে কয়েক দফায় বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন আরও ৩৩০ জন। তাদের ১৫ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হয়েছিল।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত