শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

তীব্র তাপদাহেও ক্রিকেট চলবে!

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৪৩ পিএম

'ক্লাবগুলো প্লেয়ারদেরকে পেমেন্ট দিয়েছে। এখন ক্লাবগুলো যদি চায় খেলা চালিয়ে যেতে আমাদের সিসিডিএম এর তো কিছু করার নেই। এগুলা পরিচালনা করে ক্লাব। একটা ক্লাবও বলে নাই যে আমরা খেলব না।'

ক্রিকেটের আবিষ্কারক ইংরেজদের কাছে খেলাটি ছিল গ্রীষ্মকালীন বিনোদন। এখনো ইংল্যান্ডের বার্ষিক ক্রীড়াপঞ্জিকায় ক্রিকেট স্থান পেয়েছে বসন্তের শেষ থেকে গোটা গ্রীষ্মকাল জুড়ে, খানিকটা শরতের শুরুতে অর্থাৎ এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। অস্ট্রেলিয়াতেও খেলা হয় গ্রীষ্মকালে। তবে এই দুই দেশের গ্রীষ্মের মত আবহাওয়া নয় বাংলাদেশের। বরং বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাবে গ্রীষ্মকাল হয়ে উঠছে প্রচন্ড শুষ্ক এবং তীব্র গরমের ঋতু। 

চলমান তাপপ্রবাহে যখন দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, তখনও ঢাকার ক্লাব গুলো ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের খেলা বন্ধ করতে রাজি হয়নি। হয়তো ক্রিকেটের কুলীনদের ঐতিহ্য মেনেই 'সামার স্পোর্ট' করতে চাইছেন ঢাকার ক্লাব কর্তারা, আদতে যাদের হাতে দেশের ক্রিকেটেরই নিয়ন্ত্রণ। গ্রীষ্মের খরতাপে ক্রিকেট খেলতে গিয়ে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্য যে ঝুঁকির মুখে, সেদিকটায় তাদের নেই কোন সদয় দৃষ্টি।

তীব্র গরমে পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে, পেশির সংকোচন হতে পারে। এই গরমে রোদে খেলাধূলায় স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে শনিবার পাঠানো হয়েছে প্রিমিয়ার লিগের সুপার লিগ এবং রেলিগেশন লিগের দুই রাউন্ডের সূচী জানান হয়েছে। সুপার লিগে ২২ এপ্রিল তিন ভেন্যুতে তিনটি ম্যাচ, এরপর ২ দিনের বিশ্রামের পর ২৫ এপ্রিল আরো তিনটি ম্যাচ। রেলিগেশন লিগের ম্যাচ যথাক্রমে ২৩, ২৬ ও ২৯ এপ্রিল; প্রতিটি ম্যাচের  মাঝে আছে ২ দিনের বিরতি। রাজধানীতে চলমান তাপপ্রবাহের মাঝে ৫০ ওভারের ক্রিকেটের মত দীর্ঘ সময়ের ম্যাচ আয়োজনের যৌক্তিকতা নিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছিলে সিসিডিএম (ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রপলিস) এর সদস্য সচিব আলি হোসেন এর কাছে। দেশ রূপান্তরকে তিনি বলেন, 'ক্লাবগুলোর সঙ্গে মিটিং ছিল আজকে। ক্লাবরা চাচ্ছে খেলবে তারা। এই জন্য আমরা ২২ আর ২৪ এই দুই তারিখে দুইটা খেলার ফিক্সচার দিয়েছি। দুইদিন দেখি, এরপর কি হয় আমরা সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেব।' এই তীব্র গরমে ক্রিকেটারদের কাছ থেকে তাদের পরিপূর্ণ  পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে কি না এই প্রসঙ্গে আলি হোসেন বললেন, 'ভাই এটা তো আমাকে বললে হবে না। ক্লাবগুলো প্লেয়ারদেরকে পেমেন্ট দিয়েছে। এখন ক্লাবগুলো যদি চায় খেলা চালিয়ে যেতে আমাদের সিসিডিএম এর তো কিছু করার নেই। এগুলা পরিচালনা করে ক্লাব। একটা ক্লাবও বলে নাই যে আমরা খেলব না।' তাপদাহের কথা চিন্তা করে খেলা আগে শুরু করা বা পানি পানের বিরতি বাড়ানোর মত কোন পদক্ষেপও নেয়ার কথা এখনো ভাবেনি সিসিডিএম, 'ড্রিঙ্কস ব্রেক বাড়ানো বা কুলিং ব্রেক দেয়া এগুলা তো আম্পায়ারস কমিটির ব্যপার, আমরা এসব নিয়ে তাদেরকে কিছু বলি নাই। আজকের মিটিংয়ে এসব নিয়ে কোন আলোচনাই হয়নি।'

নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্পোর্টস মেডিসিনে ডিগ্রি নেয়া ডাক্তার তুষার মাহমুদ কাজ করেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলসহ ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগেও। দেশ রূপান্তরকে তিন জানিয়েছেন এই তীব্র গরমে ক্রীড়াবিদদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা, 'তীব্র গরমে পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে, পেশির সংকোচন হতে পারে। এই গরমে রোদে খেলাধূলায় স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে।' তাপদাহে চিকিৎসকরা পরামর্শ দিচ্ছেন একটানা রোদে না থাকার, রঙিন কাপড় না পরার। অথচ প্রিমিয়ার লিগের ক্রিকেটারদের রোদে একটানা ৫০ ওভার ফিল্ডিং করতে হবে, গায়ে চড়াতে হবে রঙিন জার্সি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত