শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

হকিতে বিশৃঙ্খলার কঠিন শাস্তি

আপডেট : ২৬ মে ২০২৪, ০৬:৪৪ এএম

প্রিমিয়ার লিগ হকির অঘোষিত ফাইনাল আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে মারামারিসহ মাঠের ভেতরেই বিশৃঙ্খলায় জড়িয়ে পড়েন দুই দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। ১৯ এপ্রিল সেই পন্ড ম্যাচের পর রবিবার কার্যনির্বাহী কমিটির সভা শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে  আবাহনী লিমিটেড এবং মেরিনার ইয়ংস ক্লাবকে যুগ্মভাবে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন। একই সঙ্গে মাঠে এবং মাঠের বাইরে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে কঠিন শাস্তি দিয়েছে জড়িত খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের।

বাহফে সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক সাঈদ স্বাক্ষরিত আনুষ্ঠানিক বার্তায় জানানো হয়েছে, ১২ ম্যাচের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে মোহামেডানের রাসেল মাহমুদ জিমিকে। আবাহনীর পুষ্কর খীসা মিমোকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ২ ম্যাচের জন্য বহিষ্কার হয়েছেন নাঈম উদ্দিন, ৭ ম্যাচের জন্য বহিষ্কার আশরাফুল হক সাদ, ২ ম্যাচ বহিষ্কার নুরুজ্জামান নয়ন। মোহামেডানের ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্সকে ৪ বছরের জন্য ক্লাব কর্মকর্তা হিসেবে মাঠে দায়িত্ব পালনে নিষিদ্ধ করা হয়েছে, মোহামেডানের সহকারী কোচ রাসেল খান বাপ্পি ৫ ম্যাচ বহিষ্কার, মোহামেডানের উপদেষ্টা কোচ

গোবিনাথান বাংলাদেশের হকি থেকে আজীবন বহিষ্কার। শাস্তিপ্রাপ্তদের তালিকাটা দীর্ঘ। তাদের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেতিবাচক মন্তব্যের কারণে ফেডারেশনের সাবেক কর্মকর্তা তারেক এ আদেলকে এবং ফেডারেশনের বিরুদ্ধে মামলা করায় জহিরুল ইসলাম মিতুলকে বাংলাদেশের হকি থেকে আজীবন বহিষ্কার এবং মোহামেডানের পরিচালক জামাল রানাকে অশালীন মন্তব্যের জন্য আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। আর্থিক দন্ড দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ এসসি, অ্যাজাক্স এসসি ও আজাদ এসসিকে। উল্লিখিত সব শাস্তি প্রিমিয়ার হকি লিগ এবং ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে কার্যকর হবে, অর্থদন্ডপ্রাপ্তদের জরিমানা পরিশোধ না করা পর্যন্ত বহিষ্কার আদেশ বলবৎ থাকবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত