শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পাকিস্তান-ভারত দ্বৈরথে মাতবে নিউ ইয়র্ক

আপডেট : ০৯ জুন ২০২৪, ০১:৫৮ এএম

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানেই মহারণ, আর সেটি বিশ্বকাপের মঞ্চে হলে তো কথাই নেই। ২০২১ ও ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বা ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপেও দেখা গেছে এই দুটি দলের ক্রিকেট যুদ্ধ। আজ যুক্তরাষ্ট্রের নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামবেন রোহিত শর্মা-বাবর আজমরা। দ্বিতীয় ম্যাচেই মুখোমুখি হতে হচ্ছে তাদের। যুক্তরাষ্ট্রের কাছে প্রথম ম্যাচে হারায় স্বভাবতই ব্যাকফুটে পাকিস্তান। আইরিশদের হারিয়ে ভারতের হয়েছে শুভ সূচনা। এতেই পরিষ্কার, পাকিস্তান আজ নামবে টিকে থাকার লড়াইয়ে। আর ভারতের লক্ষ্য এগিয়ে যাওয়ার।

পাকিস্তান এমন এক দল যারা কখন কী করবে তা বলা মুশকিল। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে পাকিস্তানের খেলা বদলে যায়, তারা আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে, তা অতীতে দেখা গেছে বহুবার। যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হারের ধাক্কা সামাল দিতে না দিতেই আজ তাদের সামনে চিরবৈরী ভারত। বিশ্বকাপে টিকে থাকতে তাদের জয়ের বিকল্প নেই।

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে ১৫৯ রান করেও জিততে পারেনি পাকিস্তান। যুক্তরাষ্ট্র সমান ১৬৯ রান তুলে ফেলে। পরে সুপার ওভারে বাবরের দলকে পেতে হয় হারের লজ্জা। সেই ম্যাচে বোলিং-ব্যাটিং দুই বিভাগেই ভুগেছে পাকিস্তান। তবে সেই ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে বাবর দায় চাপিয়েছিলেন বোলারদের ওপরে। অথচ বাবর নিজে ব্যাটিং করেছিলেন ১০২ স্ট্রাইক রেটে। আইসিসি’র সহযোগী দেশের কাছে হেরে শুরু। এ নিয়ে ভীষণ সরব সাবেক খেলোয়াড় ও ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। প্রতিনিয়ত বইছে সমালোচনার ঝড়। ভারতের বিপক্ষে এই ম্যাচটা তাই সমালোচকদের মুখ বন্ধ করার সুযোগ পাকিস্তানের জন্য। সেটা পারলে তো ভালোই। না পারলে বিশ্বকাপের সুপার এইটের পথটা যেমন কঠিন হয়ে পড়বে, ঠিক তেমনি সইতে হবে হাজারো সমালোচনা। ছোট প্রতিপক্ষের কাছে হারার পর ঘুরে দাঁড়ানোর অসাধারণ নজির গেল বিশ্বকাপেই ছিল পাকিস্তানের। সুপার টুয়েলভ পর্বে তারা হেরে বসেছিল জিম্বাবুয়ের কাছে। তবে শেষ পর্যন্ত আসরের ফাইনাল খেলেছিল তারা।

গত বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের ফলাফল হয়েছিল শেষ বলে। যদিও ৬ উইকেটের জয় পেয়েছিল রোহিতরা। ওই ম্যাচের জয়ের নায়ক বিরাট কোহলি খেলেছিলেন ৫৩ বলে অপরাজিত ৮২ রানের ইনিংস।

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ইতিহাস অবশ্য ভালো নয় পাকিস্তানের। ভারতের বিপক্ষে ১২ ম্যাচের মাত্র তিনটিতে জিতেছে পাকিস্তান। ভারতের জয় আট ম্যাচে। একটি ম্যাচ টাই হওয়ার পর বল আউটে (২০০৭ বিশ্বকাপে) জিতেছিল ভারত। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৭ দেখায় ভারতের জয় ছয়টিতে, পাকিস্তান জিতেছে এক ম্যাচ। বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে এই ম্যাচটাকে ঘিরেই যত উত্তেজনা। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে খেলার বাইরে আরও নানা বিষয় জড়িয়ে যায়। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। এই ম্যাচে আছে জঙ্গি হামলার হুমকিও।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত