শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রেজার বাদাম কাউন চাষ

আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ১২:৫৩ এএম

দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার চাষি রেজানুল ইসলাম রেজা। এক জমিতে একসঙ্গে বাদাম ও কাউন চাষ করে সফলতা পেয়েছেন। বাদামের সঙ্গে জমিতে কাউনের চাষ নিয়ে তিনি বলেন, দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চলে এক সময় প্রচুর কাউন চাষ হতো। এখন আর সেভাবে কাউন চাষ হয় না। আধুনিক কৃষি প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উঁচু জমিতে বাদামের সঙ্গে একই কাউন চাষ করে ব্যাপক সফলতা পেয়েছেন তিনি। দিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের মুরারিপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. রেজানুর ইসলাম রেজা।

রেজা বলেন, ইউটিউব ও বিভিন্ন জার্নালের কলাম পড়ে, স্বল্প খরচে অধিক লাভ হওয়ায় এ ফসল চাষের দিকে ঝুঁকছেন। প্রথমবারের মতো সাড়ে ৩ একর উঁচু জমিতে বাদাম চাষ করছেন। এর মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে দেড় একর জমিতে বাদামের সঙ্গে কাউন চাষ করেছি। বাদাম এবং কাউন একসঙ্গে চাষ করা তেমন সহজ ছিল না। তবে তেমন খরচ নেই। সেচ কম লাগে এবং অনাবৃষ্টিতেও সমস্যা নেই। এখন পর্যন্ত সাড়ে ৩ একর জমিতে বাদাম চাষে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বাজার হিসাবে প্রায় ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা আয় হতে পারে।

বীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, বাদামের সঙ্গে কাউন চাষে বেশ ঝুঁকি রয়েছে। এই চাষাবাদে অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন। তবে তরুণ এই উদ্যোক্তা সফলতার মুখ দেখেছে। তার সফলতা কৃষকদের উৎসাহিত করবে। চাষ ও উৎপাদন বাড়লে কাউনের চাল বিদেশে রপ্তানির সুযোগ রয়েছে। প্রতিবেশী কৃষক আকবর আলী বলেন, আমি রেজার বাদামের সঙ্গে কাউনের চাষ দেখতে এলাম। রেজার এ উদ্যোগ দেখে আমিও আগামী বছর কাউন চাষ করব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। চালের চেয়ে  বেশি দাম কাউন চালের।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত