শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বায়রার সভায় হাতাহাতি-হট্টগোল

আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ০৭:৪৭ পিএম

জনশক্তি রপ্তানিকারক ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিসের (বায়রা) ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভায় হাতাহাতি ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে  এ সাধারণ সভা হয়। এতে  লাঞ্ছনার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির একাংশের নেতারা।
 
বায়রার জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রিয়াজ উল ইসলামসহ একাংশের সাধারণ সদস্যরা জানান, সকালে সংগঠনের বার্ষিক সাধারণ সভার রেশে তাদেরকে লাঞ্ছনা ও হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে। বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারি মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে সেই সিন্ডিকেটের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাই সংগঠনটির সাধারণ সদস্যদের দাবি অগ্রাহ্য করেছেন। পরে আমরা সভা থেকে বেরিয়ে যাই। 

পরে সিনিয়র সহ-সভাপতিসহ সাধারণ সদস্যদেরকে হেনস্থা করা ও  সিন্ডিকেটসহ বিভিন্ন ইস্যুতে সাধারণ সদস্যদের দাবীকে অগ্রাহ্য করায় এবং বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারি সিন্ডিকেটের সাথে আঁতাত করার প্রতিবাদে নয়াপল্টনের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করেন। 

এতে হেনস্তার শিকার নেতারা বলেন, মালয়েশিয়া সিন্ডিকেটের কারণে সাধারণ সদস্যদেরকে বঞ্চিত করা , ৫০ হাজার কর্মী না যেতে পারা , অতিরিক্ত অভিবাসন ব্যয় , অনিয়ম দুর্নীতি , শ্রম বাজার বন্ধ হাওয়া এবং দেশের ও সরকারের সুনাম নষ্ট করার প্রতিবাদ করায় আজ আমাদের ওপর আক্রমণ করা হয়। এটা ঘৃণ্য কাজ। 

এদিকে ওই ঘটনার জেরে সন্ধ্যা সাতটায় বায়রার জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবুল হোসেন স্বাক্ষরিত একটি বিবৃত্তি দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিসের (বায়রা) ৩৩তম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বায়রার সভাপতি মো. আবুল বাশার। সভার এক পর্যায়ে মহাসচিবের বার্ষিক প্রতিবেদন, ২০২২-২৩ অর্থ বছরের নিরীক্ষিত হিসাব আলোচনার সময় মত-দ্বিমতকে কেন্দ্র করে কিছুটা উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। বায়রার নির্বাচনকে সামনে রেখে কোন কোন বক্তা নিজেদের ব্যক্তিগত ইস্যু নিয়ে বক্তব্য দেওয়ার চেষ্টা করলে সভাপতি নির্দিষ্ট আলোচনার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে বলেন। এরই প্রেক্ষিতে কিছু সংখ্যক সদস্য পরিকল্পিতভাবে হড্ডগোল করে সভাস্থল ত্যাগ করেন। এরপরও সভার কার্যক্রম স্বাভাবিক ভাবেই শেষ হয়েছে।’

বায়রা যুগ্মমহাসচিব-১ ফখরুল ইসলাম জানান, আমাদের লোকেরা যখন সিণ্ডিকেটের প্রতিবাদ করেছে, সিণ্ডিকেটের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেয় তখনি সিণ্ডিকেটের লোকেরা আমাদের লোকদের ওপর হামলা করে। পরে আমরা সংবাদ সম্মেলন করেছি।  

এদিকে বায়রার মহাসচিব আলী হায়দার বলেন, নিজেদের মধ্যে পক্ষ-বিপক্ষ ও মতের দ্বিমত থাকবেই। সামনে নির্বাচনকে উপলক্ষ্য করে একটি পক্ষ মালয়েশিয়া শ্রমবাজারকে পুঁজি করতে চাচ্ছে। এর ফায়দা নিতে চাওয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। 

জানা গেছে, সিন্ডিকেটের কারণে গত ৩১মে বন্ধ হয়েছে মালয়েশিয়া শ্রমবাজার। তার পর থেকেই বায়রা একপক্ষ অন্যপক্ষের ওপর সিন্ডিকেটের অভিযোগ তুলেন। এদিকে মালয়েশিয়া যেতে না পারা কর্মীদের তালিকা করতে তদন্ত কমিটি ও ভুক্তভোগী শ্রমিকদের কাছ থেকে ইমেইলে তথ্য চেয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদিশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এছাড়াও বায়রা থেকেও যেতে না পারা কর্মীদের তালিকা করা হচ্ছে। এদিকে মালয়েশিয়া যেতে না পারা কর্মীরা তাদের টাকা তুলতে এজেন্সিগুলোর দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত