সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ওটিটিতে রাজত্ব শিহাব শাহীনের

আপডেট : ২৫ জুন ২০২৪, ১২:২৯ এএম

রোমান্টিক নির্মাণে তার জুড়ি নেই। রোমান্সের পাশাপাশি ড্রামা, থ্রিলার, সায়েন্স ফিকশন, সাইকোলজিক্যাল সব ধরনের কাজ করে নিজেকে বহু আগেই সব্যসাচী নির্মাতা হিসেবে প্রমাণ করেছেন শিহাব শাহীন। তারকা, তারকাবিহীন শিল্পী নিয়েও সফল নির্মাণ মুনশিয়ানায় নিজের জাত চেনালেন তিনি। যার কারণে প্রযোজকরাও নামটার প্রতি আস্থা রাখেন। যার দরুন ওটিটিতে শিহাব শাহীনই এখন পর্যন্ত প্রথম যিনি কি না চারটি সিরিজ নির্মাণ করেছেন একই প্ল্যাটফর্ম থেকে।

টেলিভিশন, সিনেমা দুই মাধ্যমেই সফল এই নির্মাতার হাত ধরেই দেশে প্রথম নির্মিত হয় ওয়েব সিরিজ ‘আগস্ট ১৪’। প্রথম সিরিজেই সফল। একে একে ‘যদি কিন্তু তবুও’, ‘সিন্ডিকেট’ এবং ‘মায়াশালিক’, ‘মাইসেলফ অ্যালেন স্বপন’, ‘বাবা, সামওয়ান ফলোয়িং মি’, ‘কাছের মানুষ দূরে থুইয়া’র মাধ্যমে দেখিয়েছেন নিজের দাপট। সদ্য মুক্তি পাওয়া তার সর্বশেষ নির্মিত সিরিজ ‘গোলাম মামুন’ও চারদিকে ভূয়সী প্রশংসা কুড়াচ্ছে। গেল বছরের সিরিজ ‘বুকের মধ্যে আগুন’র স্পিন-অফ সিরিজ এটি। পাশাপাশি বলা দরকার, ওয়েব সিরিজের পর শিহাব শাহীনই দেশের প্রথম স্পিন-অফ সিরিজ নির্মাতা। দেশের পাশাপাশি কলকাতারও কারণ সিরিজটি হইচইয়েরও প্রথম স্পিন-অফ, যা থেকে এখনো তুমুল সাড়া পাচ্ছেন। প্রায় ২৩ বছরের ক্যারিয়ারে এ সময় এসেও নতুন মাধ্যমে রাজত্ব করছেন। বলা যেতেই পারে, এই মুহূর্তে ওটিটির অঘোষিত রাজাধিরাজ তিনি। দর্শক থেকে শুরু করে প্রযোজকরাও তাই মনে করেন।

শিহাব শাহীনের ভাষ্যে, ‘আমার ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে অর্থাৎ প্রথম নির্মিত নাটক “ঘূর্ণি” ছিল থ্রিলার, সায়েন্স ফিকশন এবং রোমান্টিকের মিশেলে, এরপর “এক্স ফ্যাক্টর” ছিল রম-কম, “রমিজের আয়না” ড্রামা সিরিজ, “কাঠের খাঁচা” ড্রামা সিরিজ। এখনকার এই সময়টায় আমার সবচেয়ে বেশি পপুলার কাজ হয়েছে থ্রিলার; যেমন আগস্ট ১৪, সিন্ডিকেট, মাইসেলফ অ্যালেন স্বপন, গোলাম মামুন। সব সময় নতুন কিছু করতে চেয়েছি, ভালো গল্প বলতে চেয়েছি এবং নিজের কমফোর্ট জোনের বাইরে গিয়ে কিছু করতে চেয়েছি। যে গল্প কিংবা চরিত্রটায় আমি নিজে অ্যাংগেইজড হই, সেই গল্পটাই আমি দর্শকদের বলতে চাই। কবে কে কী নির্মাণ করেছেন, তার চেয়ে সর্বশেষ কাজটা দিয়েই কাউকে বিচার করে দর্শক। আর তাই সব সময় আমি আমার শেষ কাজটাকেই সেরা হিসেবে করতে চাই, যেমন এখন আমার শেষ নির্মাণ “গোলাম মামুন”।’

দর্শক, শিল্পী-কলাকুশলী, প্রযোজকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, ‘“আগস্ট ১৪” দিয়েই কিন্তু ওটিটিতে আমার কাজ শুরু। এই মাধ্যমে প্রথম সিরিজ আমারই করা। এরপর আরও অনেকগুলো ফিল্ম, সিরিজ করেছি, যার সবগুলোই হিট প্রোডাকশন। সবশেষ করলাম “গোলাম মামুন”, বাংলাদেশ এবং কলকাতা দুই বাংলারই প্রথম স্পিন-অফ সিরিজ যেটি দর্শক সাদরে গ্রহণ করেছে। প্রতিটি সিরিজ, ফিল্ম থেকেই অসম্ভব ভালোবাসা পেয়েছি। মাইলেজের দিক দিয়েও বিভিন্ন রেকর্ড গড়েছে আবার সেটা ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েছে আমারই কনটেন্ট। এটা সত্যি অনেক ভালো লাগার, আনন্দের। প্রযোজকরা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন, এরজন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। দর্শকদের ভালোবাসার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা।’

শিগগিরই আবার বড় পর্দায় ফিরবেন বলে জানালেন এই নির্মাতা। তার কাছে প্রশ্ন ছিল, দেশের সবচেয়ে বড় তারকা শাকিব খানকে নিয়ে কোনো সিনেমা করার পরিকল্পনা আছে কি না, উত্তরে বললেন, ‘সিনেমা করব। আগামী বছরে পরিকল্পনা আছে। তবে এতে তিনি থাকবেন কি না, এ বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না। দেখা যাক, সময়ই বলবে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত