আওয়ামী লীগের বাধায় এলাকায় যেতে পারিনি: হাফিজ|111406|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২২:০৩
আওয়ামী লীগের বাধায় এলাকায় যেতে পারিনি: হাফিজ
নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের বাধায় এলাকায় যেতে পারিনি: হাফিজ

বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন মেজর হাফিজ।

আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাসী’দের বাধায় ভোলায় নিজ নির্বাচনী এলাকায় যেতে পারেননি বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। 

লঞ্চে হামলার অভিযোগ করে হাফিজ জানান, গত বুধবার লঞ্চে যাওয়ার জন্য তিনি প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এর আগে তার সফরসঙ্গীরা লঞ্চে ওঠেন। সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে আওয়ামী লীগের ‘ক্যাডার বাহিনী’ ছাত্রলীগ-যুবলীগ লঞ্চ টার্মিনাল দখল করে নেয়। লঞ্চে ঢুকে তার প্রায় ৫০ কর্মীকে মারাত্মকভাবে আহত করে। 

তিনি বলেন, “টার্মিনালের প্রবেশপথে ২০০ জন মাস্তান। কারো হাতে অস্ত্র, কারো হাতে পিস্তল, কারো হাতে লাঠি-হকিস্টিক নিয়ে নৌ টার্মিনালকে কর্ডন করে রাখে, যাতে আমি লঞ্চে উঠতে না পারি। এতে করে পুরো টার্মিনাল এলাকা সম্পূর্ণ জনশূন্য হয়ে পড়ে। লঞ্চটির সারেংকে বাধ্য করা হয় নদীর মাঝখানে নিয়ে যেতে। এ কারণে আমি নির্বাচনী এলাকায় যেতে পারিনি।”

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা জানান, তাকে অভ্যর্থনা জানার জন্য ৪০ হাজার লোক লঞ্চঘাটে সমবেত হয়েছিলেন। পরে তারা হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন। 

নির্বাচন উপলক্ষে সেনা মোতায়েনে দেরি করা হচ্ছে অভিযোগ করে সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা বলেন, “সামরিক বাহিনী মোতায়েন হবে ১৫ তারিখ থেকে, এমন খবর ইতিপূর্বে গণমাধ্যমে এসেছিল। হঠাৎ করে জানা গেল, তা ১০ দিন পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। কারণ কী? কারণ হলো বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের পুলিশ দিয়ে সাইজ করা।” 

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল লতিফ খান, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, হারুনুর রশীদ, কাজী রফিক, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।