৭০’র নির্বাচনের মতো ‘ভোট বিপ্লব’ হবে : আ স ম রব|111538|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৭:৩৩
৭০’র নির্বাচনের মতো ‘ভোট বিপ্লব’ হবে : আ স ম রব
নিজস্ব প্রতিবেদক

৭০’র নির্বাচনের মতো ‘ভোট বিপ্লব’ হবে : আ স ম রব

শনিবার বিকেলে টঙ্গীতে ধানের শীষের প্রার্থী সালাহ উদ্দিন সরকারের নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখেন আ স ম আব্দুর রব। ছবি: দেশ রূপান্তর

৭০’এর নির্বাচনে যেমন ‘ভোট বিপ্লব’ হয়েছিল, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তেমন বিপ্লব হবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা ও জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব।

শনিবার বিকেলে টঙ্গীতে ধানের শীষের প্রার্থী সালাহ উদ্দিন সরকারের নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ধানের শীষের বিজয় হবে। গণজাগরণ হবে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে আ স ম রব বলেন, ভোটের আগের দিন রাত থেকে কেন্দ্র পাহারা দিতে হবে।

ঐক্যফ্রন্টের এ নেতা বলেন, বাংলাদেশের জনগণের প্রতিটি ভোট খালেদা জিয়া মুক্তিকে ত্বরান্বিত করবে।

এ সময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ রাত থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত হিন্দু-মুসলমান মা-বোনদের ওপর যে কমান্ডো বাহিনী অত্যাচার করেছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে নিয়েছে, সেই বাহিনীর কমান্ডারের হাতে শেখ হাসিনা নৌকা তুলে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, এখানে মাহমুদুর রহমান মান্না, নজরুল ইসলাম খান, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, হাসান উদ্দিন সরকার আমরা যারা এখানে বসে আছি সবাই মুক্তিযুদ্ধ করেছি। আমরা মৃত্যুকে ভয় পাই না।

আ স ম রব বলেন, এ লড়াই ভোটের লড়াই, এ লড়াই গণতন্ত্রের লড়াই, এ লড়াইয়ে জিততে হবে। এ লড়াই বাঁচা-মরার লড়াই।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি হাসান উদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে জনসভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, গাজীপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব উদ্দিন প্রমুখ।

নির্বাচনী জনসভায় মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, যত অত্যাচার-নির্যাতন করুক আমরা এখন জবাব দেব না। ৩০ তারিখের নির্বাচনে এমন জবাব দেব যে তারা আওয়াজ করতে পারবে না।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশের অস্তিত্ব রক্ষার নির্বাচন, দুঃশাসনের অবসান, ব্যাংক লুট, দুর্নীতি ও অত্যাচার নির্যাতনের বিরুদ্ধে এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির নির্বাচন।

ডা. জাফরুল্লাহ জনসভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের জয় হয়ে গেছে, ২ জানুয়ারি ন্যায়বিচারের মাধ্যমে খালেদা জিয়া কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব উদ্দিন জানান, এই জনসভা দুপুরে টঙ্গী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। প্রশাসন মাঠটি ব্যবহারের অনুমতি দিলেও সকাল থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মাঠটি দখল করে রাখে। পরে প্রার্থী সালাহ উদ্দিন সরকারের বাসভবন প্রাঙ্গণে জনসভা অনুষ্ঠিত হয়।

টঙ্গীর জনসভা শেষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ আ স ম আব্দুর রবের নেতৃত্বে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে সড়ক পথে যাত্রা করেন। বিকেলে তারা শ্রীপুরের মাওনায় গাজীপুর-৩ আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী প্রিন্সিপাল ইকবাল সিদ্দিকীর পথসভায় যোগ দেন।