নির্বাচন করতে পারছেন না বিএনপির চার প্রার্থী|111773|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
নির্বাচন করতে পারছেন না বিএনপির চার প্রার্থী
নিজস্ব প্রতিবেদক

নির্বাচন করতে পারছেন না বিএনপির চার প্রার্থী

আসন্ন সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পাওয়া তিন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং অপর এক প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতার পথ আটকে গেছে সর্বোচ্চ আদালতে। গতকাল সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে সাতজনের পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চে চারজনের প্রার্থিতা বাতিলের আদেশ আসে।

ওই চারজন হলেন ধামরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঢাকা-২০ আসনে বিএনপির প্রার্থী তমিজ উদ্দিন, বগুড়া-৩ আসনের প্রার্থী একই জেলার আদমদীঘি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মুহিত তালুকদার, বগুড়া-৭ আসনের প্রার্থী জেলার শাহজাহানপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরকার বাদল এবং মানিকগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আফরোজা খান রীতা।

তাদের মধ্যে তমিজ উদ্দিনের মনোনয়নপত্র নির্বাচন কমিশন বৈধ ঘোষণা করলেও ১১ ডিসেম্বর হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে তা স্থগিত হয়েছিল। পরে তমিজ উদ্দিনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে বিষয়টি আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়েছিল চেম্বার আদালত। গতকাল সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ চেম্বার আদালতের ওই স্থগিতাদেশ তুলে নেয়। এর মধ্য দিয়ে আটকে গেছে তমিজের প্রতিদ্বন্দ্বিতা। তার প্রার্থিতা বাতিল চেয়ে রিট আবেদনটি করেছিলেন ঢাকা-২০ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বেনজির আহমেদ।

এদিকে বগুড়ার মুহিত তালুকদার ও সরকার বাদলের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিল সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশন (ইসি)। দুজনের করা পৃথক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৯ ডিসেম্বর ইসির ওই সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছিল হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। পরে ইসির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের ওই আদেশ ১১ ডিসেম্বর স্থগিত করে চেম্বার আদালত। গতকাল শুনানি শেষে আপিল বিভাগ চেম্বার আদালতের ওই স্থগিতাদেশ চলমান রাখে। এতে এ দুজনের ভোটের পথ আটকে যায়।

সর্বোচ্চ আদালতে তিনজনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ও প্রবীর নিয়োগী। ইসির পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মাহবুবে আলম। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী সানজিদ সিদ্দিকী।

আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনজনের মধ্যে তমিজ উদ্দিন ও আবদুল মুহিত তালুকদার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে বিএনপির পক্ষে আগামী নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু তা গৃহীত না হওয়ায় তাদের প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায়। আর পদত্যাগ না করেই সরকার বাদল প্রার্থী হয়েছিলেন বলে তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।  ইসির আইনজীবী সানজিদ সিদ্দিকী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপিল বিভাগের এ আদেশের ফলে বিএনপি মনোনীত এ তিন প্রার্থী নির্বাচন করতে পারছেন না।’

এদিকে নির্বাচনে মানিকগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আফরোজা খান রীতার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে ইসির দেওয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত করে হাইকোর্ট যে আদেশ দিয়েছিল, তার ওপর কোনো আদেশ দেয়নি আপিল বিভাগ। গতকাল এ সংক্রান্ত শুনানি নিয়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত আপিল বেঞ্চ এ বিষয়ে ‘নো অর্ডার’ দেন।

আপিল বিভাগ কোনো আদেশ না দেওয়ায় হাইকোর্টের আদেশটি বহাল রয়েছে। এর ফলে রীতা আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না বলে জানান সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।