যে খাবারে খিদে বাড়ে|111933|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৩:৪৫
যে খাবারে খিদে বাড়ে
অনলাইন ডেস্ক

যে খাবারে খিদে বাড়ে

পপকর্ন থেকে শুরু করে হিমায়িত দইয়ের মতো অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো প্রতিদিন আমরা খেয়ে থাকি। এগুলো প্রচুর খাওয়ার পরও পেট সন্তুষ্ট থাকে না। আরো খাওয়ার ইচ্ছে জাগে।

অবশ্য এর পেছনে সুনির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে। এমন কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে পেট ভরার পরিবর্তে আরো ক্ষুধার্ত করে তোলে। বিষয়টি অস্বাভাবিক ঠেকলেও সত্য। এ রকম ১০টি খাবারের কথা উল্লেখ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া-

প্যাকেটজাত জুস: প্যাকেটজাত জুসে কৃত্রিম ফ্লেভার রয়েছে। এতে উচ্চমাত্রায় চিনি থাকায় শরীরে ব্লাড সুগারের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে আপনাকে ক্ষুধার্ত করে তোলে।

হিমায়িত টকদই: অফিস চলাকালে খিদে লাগলে অনেকে দই খেয়ে থাকেন। কিন্তু আপনি জানেন কি- এই টকদই খাওয়ার ফলে আপনার খিদে আরো বেড়ে যেতে পারে। এতে থাকা উচ্চমাত্রার চিনি ক্ষুধার্তের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা বাড়ে।

ফাস্টফুড: অধিকাংশ ফাস্টফুডে অতিরিক্ত চর্বি থাকে। এই চর্বি ক্ষুধা নিয়ন্ত্রক নিউরোট্রান্সমিটারকে নাড়া দিয়ে শরীরের সক্ষমতাকে দুর্বল করে তোলে। সুতরাং ফাস্টফুড খেলে পেট ভরার পরিবর্তে আপনাকে আরো ক্ষুধার্ত করে তুলবে।

শস্যদানা: অধিকাংশ শস্যদানাই আপনাকে ক্ষুধার্ত করে তুলতে পারে। অতিমাত্রায় চিনি এবং আঁশের অনুপস্থিতির কারণে শস্যদানা মুহূর্তের মধ্যে আপনাকে ক্ষুধার্ত করে তুলতে পারে।

সাদা রুটি: সকালের নাশতায় সাদা রুটি না খাওয়াই ভালো। কারণ এটি মানবদেহের ইনসুলিনের মাত্রাকে উদ্দীপক করে তোলে এবং ক্ষুধা বাড়াতে সাহায্য করে।

চিপস: টিভি বা সিনেমা দেখার সময় ক্ষুধা অনুভূত হয়। এসময় বাটি বা প্যাকেটভর্তি সল্টি পপকর্ন এবং চিপস নিমেষেই শেষ করা যায়। এর ফলে আপনি বেশি ক্ষুধার্ত হয়ে পড়েন। অতিরিক্ত লবণের কারণে শরীর আর্দ্রতাশূন্য হয়ে পড়ে। ফলে বেশি ক্ষুধা অনুভূত হয়।

সাদা পাস্তা: বিষয়টি অবাক করার মতো হলেও সত্য যে, জনপ্রিয় সাদা পাস্তাতে কোনো পুষ্টি উপাদান থাকে না। এটি খাওয়ার ফলে পেট ভরার পরিবর্তে আপনাকে আরো ক্ষুধার্ত করে তুলবে। তবে পাস্তাপ্রেমীরা সাদার পরিবর্তে শস্যদানার তৈরি পাস্তা বেছে নিতে পারেন।

ডায়েট ড্রিংক: সব ধরনের ডায়েট ড্রিংকসে কৃত্রিম মিষ্টি থাকে। এটি খাওয়ার পর পরই শরীরে শক্তি জোগাতে মস্তিষ্ককে তাড়া দেয়। তবে কিছুক্ষণ পরই এই প্রক্রিয়া ব্যর্থ হয়ে পড়ে। এটি শরীর এমনকি মনকেও ক্ষুধা অনুভবে তাড়না দেয়।

অ্যালকোহল: অ্যালকোহল পান করলে মানব দেহের ল্যাপটিনের মাত্রা (শক্তি ক্ষয়ের হরমোন) বৃদ্ধি পায়। ল্যাপটিন এক ধরনের হরমোন যা ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে। অ্যালকোহল পান করার কিছুক্ষণের মধ্যে ক্ষুধা অনুভূত হয়।