প্রচারে পিছিয়ে বিএনপি|112008|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
প্রচারে পিছিয়ে বিএনপি
রেজাউল করিম লাবলু

প্রচারে পিছিয়ে বিএনপি

জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারদের আকৃষ্ট করতে প্রচারের তুঙ্গে থাকে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো। আওয়ামী লীগ এরই মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে তাদের প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। সেই তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে বিএনপি। নির্বাচনের আর মাত্র ৯ দিন বাকি থাকলেও এখনো প্রচারের জন্য কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে পারেনি দলটি। 

অতীতে সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রচারের সঙ্গে থাকা সংশ্লিষ্ট নেতারা বলছেন, কে কীভাবে দায়িত্ব পালন করবেন তার কোনো নির্দেশনা নেই দলটির নেতাদের কাছে। এ ছাড়া দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাগারে থাকা, নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার আতঙ্কসহ নানা কারণে নির্বচনী প্রচার ঝিমিয়ে পড়েছে।

এ বিয়য়ে জানতে চাইলে দলটির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান ও স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘চরম বিরূপ পরিবেশে বিএনপিকে কাজ করতে হচ্ছে। দলের প্রার্থী চূড়ান্ত করার পর থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় দলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলার বিষয়টি দেখতে গিয়ে প্রচার-প্রচারণার বিষয়ে খুব একটা নজর দেওয়া হয়নি। তবে এ নিয়ে কাজ চলছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এবারের নির্বাচনের প্রচারে কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিষয়টি গুরুত্ব দেওয়া হবে। খালেদা জিয়াকে নির্বাচনে অংশ নিতে না দেওয়ার জন্য সরকারের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। এভাবে সাবেক একজন প্রধানমন্ত্রী ও একটি দলের প্রধানকে নির্বাচন থেকে বঞ্চিত করার বিষয়টি আমরা নির্বাচনী প্রচারে ব্যবহার করব। মূল কথা বিএনপির প্রচারে বেগম খালেদা জিয়াকে প্রাধান্য দেওয়া হবে।’ 

এর আগে সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রচারে নিয়োজিত থাকা এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘সবকিছুতে তালগোল পাকিয়ে ফেলছে বিএনপি। দলের এখন অগোছালো অবস্থা। বিশেষ করে আগে থেকে প্রস্তুতি না থাকায় প্রচার-প্রচারণার কাজে পিছিয়ে পড়েছে দলটি।’

বিএনপি সমর্থক সংস্কৃতিকর্মীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থার (জাসাস) সভাপতি ও ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক মামুন আহমেদ জানান, নির্বাচনী প্রচারে এখনো তিনি ডাক পাননি। তবে শিগগিরই ডাকা হবে বলে তিনি জানতে পেরেছেন।

বিএনপির বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘বিএনপির একটি ওয়েবসাইট আছে। এই সাইটে বিএনপির বিভিন্ন খবরাখবর প্রকাশ করা হয়ে থাকে। গত ১৪ ডিসেম্বর থেকে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ওয়েবসাইটটি হ্যাকড ছিল। এরপর ওয়েবসাইট উদ্ধার করা হয়েছে।’

তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, ‘শুধু ওয়েবসাইট নয়, বেশ কয়েকজন নেতার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকড করা হয়েছিল। এ ছাড়া জি-মেইল স্লো করে দেওয়া হয়েছে।’ 

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারের জন্য চলচ্চিত্রের নায়ক-নায়িকা ও কণ্ঠশিল্পীদের সমন্বয়ে আলাদা সেল রয়েছে। কিন্তু বিএনপিতে এমন সেলিব্রিটিদের একযোগে প্রচারে নামতে দেখা যাচ্ছে না। বিএনপির পক্ষে থাকা কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন তার নির্বাচনী এলাকার দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। কনকচাঁপা নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। এ ছাড়া দলের মনোনয়ন না পাওয়ায় খোদ দল থেকে পদত্যাগ করেছেন কণ্ঠশিল্পী মনির খান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘দলের মনোনয়ন না পাওয়ায় শিল্পীদের মন খারাপ। এরপরও তাদের সম্পৃক্ত করার জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে। রাগ-ক্ষোভ কমে আসলে নিশ্চয়ই তারা দলের প্রচারণায় ফিরে আসবেন বলে আশা করি।’

বিভিন্ন সময়ে বিএনপির হয়ে প্রচার চালিয়েছেন বিএনপি নেতা ফয়সাল আলীম। তিনি গতকাল দেশ রূপান্তরকে জানান, তাকে দলের দায়িত্বশীল নেতারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী দু-একদিনের মধ্যে তিনিসহ কয়েকজন মিলে এই সেক্টরে কাজ শুরু করবেন। বিশেষ করে সোশ্যাল, ইলেকট্রনিক ও ডিজিটাল মিডিয়ায় নিজে কাজ করবেন বিএনপির এই নেতা।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের একটি সূত্র জানায়, নির্বাচনকে সামনে রেখে কিছু লিফলেট তৈরি করা হয়েছে। এগুলো সারা দেশের প্রার্থীদের কাছে পাঠানো হচ্ছে। তারা নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় এগুলো জনগণের কাছে তুলে ধরছেন।

তবে বিএনপির তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা শাহ শরীফ কামাল তাজ দেশ রূপান্তরকে জানান, নির্বাচনের আগে তারা তথ্যপ্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে বেশ কিছু প্রচার চালাবেন। এর মধ্যে থাকবে ইউটিউব। এ ছাড়া মোবাইল ফোনে ভয়েস মেসেজ পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।