ভোট ডাকাতির ছকের অভিযোগ|112022|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
ভোট ডাকাতির ছকের অভিযোগ
নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

ভোট ডাকাতির ছকের অভিযোগ

খুলনার দুটি আসনে মহাজোটের প্রার্থীকে জয়ী করতে প্রশাসন ভোট ডাকাতির ছক কষেছে বলে অভিযোগ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। গতকাল বুধবার সকালে নগরীর কে ডি ঘোষ রোডে বিএনপি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন খুলনা-২ (সদর ও সোনাডাঙ্গা) আসনে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জু বলেন, ‘এ আসনের (খুলনা-২) আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রধানমন্ত্রীর ভাই। আর খুলনা-৩ (খালিশপুর, দৌলতপুর ও খানজাহান আলী) আসনের প্রার্থীকে প্রধানমন্ত্রী বোনের মতো ¯েœহ করেন। প্রধানমন্ত্রীর ভাই-বোনকে নির্বাচনে জেতানো বাধ্যতামূলক মনে করে প্রশাসন প্রস্তুতি নিচ্ছে। ডিআইজি, বিভাগীয় কমিশনার ও পুলিশ কমিশনার মিলে দফায় দফায় বৈঠক করে ভোট ডাকাতির ছক এঁকেছেন। এ নিয়ে সিইসির (প্রধান নির্বাচন কমিশনার) কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হলেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি।’

শেখ হাসিনার সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হতে পারে নাÑ অভিযোগ করে ধানের শীষের এই প্রার্থী বলেন, কয়েক দিন ধরে নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী দলীয় ক্যাডার, পুলিশ ও প্রশাসনের লোকজন অপতৎপরতা চালাচ্ছে। বিএনপির খানজাহান আলী থানা কমিটির সভাপতি মীর কায়সেদ আলীর বাড়িতে আগুন দেওয়া, বিনা ওয়ারেন্টে নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, নারী কর্মীদের লাঞ্ছিত, লিফলেট কেড়ে নেওয়া, পোস্টার ছেঁড়া, নির্বাচনী টেন্টে আগুন, কুপিয়ে কর্মীদের আহত করার অসংখ্য অভিযোগ তুলে ধরেন মঞ্জু। তিনি অভিযোগ করেন, নগরীর ৩০, ২২, ২৯, ২৪, ২১, ২৫ ও ১৮ নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলররা বাপ্পী বাহিনী-নজু বাহিনী-স্বপন বাহিনীর ক্যাডারদের নিয়ে ভোট ডাকাতির প্রস্তুতি নিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামীম, জেলা ঐক্যফ্রন্ট সভাপতি অ্যাডভোকেট আ ফ ম মহসিন, জেলা বিজেপির সভাপতি অ্যাডভোকেট লতিফুর রহমান লাবু, লেবার পার্টির লোকমান হাকিম প্রমুখ।