এ সময়ে জয়া আহসান|112033|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
এ সময়ে জয়া আহসান
মাসিদ রণ

এ সময়ে জয়া আহসান

প্রথমবার চলচ্চিত্র প্রযোজনায় এসে বাজিমাত করেছেন দুই বাংলার জনপ্রিয় ও মেধাবী অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান। মুক্তির আগে থেকে তার অভিনীত ও প্রযোজিত ছবি ‘দেবী’র প্রচার আর বিপণনে নতুন এক ভেলকি দেখেছেন দর্শকরা। মুক্তির পর প্রশংসা কুড়িয়েছে ছবিটি এবং ব্যবসায়িক সফলতাও পেয়েছে। চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে, এ বছরের অন্যতম আলোচিত ও ব্যবসাসফল সিনেমা দেবী। সেই সাফল্যের রেশ কাটতে না কাটতেই নতুন ছবির নাম ঘোষণা করলেন জয়া আহসান। গুণী এই অভিনয়শিল্পীর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সি-তে সিনেমা থেকে এবার নির্মিত হবে ‘ফুড়–ৎ’। সম্প্রতি তেমনটাই জানালেন জয়া আহসান।

প্রথম ছবিটি কিংবদন্তি কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ‘দেবী’ উপন্যাস অবলম্বনে বানিয়েছিলেন জয়া। তবে এবার তিনি একেবারে মৌলিক গল্পের পথে হাঁটছেন। ‘ফুড়ুৎ’ সিনেমার প্রি-প্রোডাকশনের কাজ শুরু হয়েছে। অভিনয়শিল্পী, গল্প, পরিচালক, কলাকুশলীসহ অনেক কিছু নির্ধারণ হয়ে গেলেও, এসবের কিছুই এখন বলতে চাইলেন না জয়া। তবে ইঙ্গিত দিয়েছেন, নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নতুন ছবিতে অভিনয় করতে চাইছেন না তিনি। জয়া বললেন, ‘আমি না থাকার চেষ্টা করছি। ছবির গল্পের সঙ্গে মানানসই কাউকে পেলে আমি থাকব না। গল্পের কথা মাথায় রেখে কয়েকজন অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে কথা বলেছি। কথাবার্তা চালিয়ে যেতে হচ্ছে। কাউকে চূড়ান্ত করিনি বলে এখনই কিছু বলতে চাচ্ছি না।’

জয়া আহসান মনে করছেন, একটি ছবির শুটিং শুরুর আগে প্রি-প্রোডাকশন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই তিনি সেদিকটায় বেশি মনোযোগী। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিদেশে কাজ করে দেখেছি, প্রি-প্রোডাকশনকে তারা অনেক গুরুত্ব দেন। একটি ছবির শুটিং শুরুর আগে প্রি-প্রোডাকশনেই অনেক বেশি সময় প্রয়োজন। আপাতত কাজটা আগে মন দিয়ে করতে চাই।’

নতুন ছবির বিষয়বস্তু নিয়ে তিনি বলেন, ‘এই ছবিটি কমেডি, ড্রামা, নস্টালজিয়া, ড্রিমস কাম ট্রুÑ এক কথায় এটি একটি আধুনিক রূপকথা। কিন্তু মানুষগুলো আসল। এর বেশি আর কিছু এখনই বলতে চাই না।’

এদিকে বাংলাদেশের গ-ি পেরিয়ে চলচ্চিত্র নিয়ে জয়া আহসান এবার পাড়ি জমিয়েছেন মার্কিন মুল্লুকে। সেখানে নিউইয়র্কের জ্যামাইকা মাল্টিপ্লেক্সে গত ১৪ ডিসেম্বর স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় জয়া আহসানের সি-তে সিনেমা প্রযোজিত প্রথম চলচ্চিত্র দেবীর প্রদর্শনীতে উপস্থিত ছিলেন তিনি। বায়োস্কোপ ফিল্মসের আয়োজনে এই প্রদর্শনীটিও প্রেক্ষাগৃহপূর্ণ ছিল। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে এই শোর শুরুতে জয়া আহসানের অনুরোধে উপস্থিত সবাই দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। দেবীর সেদিনের প্রদর্শনী সদ্যপ্রয়াত প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনকে উৎসর্গ করেন জয়া।

এদিন স্বামীসহ অভিনেত্রী রিচি সোলায়মান ও তার বন্ধু-শুভাকাক্সক্ষীরাই জয়ার সঙ্গে দেখা করতে আসেন। পরিবেশক সূত্রে জানা গেছে, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে মুক্তি পাওয়া অনম বিশ্বাস পরিচালিত ‘দেবী’ এখনো আমেরিকার বিভিন্ন রাজ্যে সমানতালে চলছে। ব্যবসার দিক দিয়ে বাংলা সিনেমায় নতুন রেকর্ড গড়েছে দেবী। চলচ্চিত্র প্রদর্শনী শেষে লং আইল্যান্ড সিটির একটি হলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে জানানো হয়, দেবীর পর জয়া আহসান অভিনীত পশ্চিমবঙ্গের ছবি কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত ‘বিসর্জন’ চলচ্চিত্রের সিক্যুয়েল ‘বিজয়া’-ও একইভাবে নতুন বছরে আমেরিকায় মুক্তি পাবে।

দেবীর কয়েক দিন আগেই কলকাতায় আপনার অভিনীত সৃজিত মুখার্জির ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবিটি মুক্তি পেয়েছে। দর্শকরা ছবিটি দারুণ পছন্দ করেছেন। জয়া বলেন, ‘সমালোচকরা বলেছেন, যিশু সেনগুপ্ত তার ক্যারিয়ারের সেরা অভিনয় করেছেন। তবে ম্যান অব দ্য ম্যাচ জয়া আহসান। এটি আমার জন্য অনেক বড় কমপ্লিমেন্ট। কারণ ছবিতে আমার চরিত্রটি প্রধান নয়, তবে গুরুত্বপূর্ণ। আমি এই চ্যালেঞ্জটি সব সময়ই গ্রহণ করি। এর আগেও সৃজিতের রাজকাহিনী ছবিতে কলকাতার অনেকগুলো মেধাবী অভিনেত্রীর সঙ্গে ছোট্ট একটি চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম। সে সময় আমার অনেক বাংলাদেশি দর্শক এত ছোট চরিত্রে অভিনয়ের বিষয়টি মানতে পারেননি। তবে সেই ছবিটিই কিন্তু কলকাতায় আমার টার্নিং পয়েন্ট। বলতে পারেন, আমি অল্প জায়গায় খেলতে ভালোবাসি (হা-হা-হা)।’ 

বর্তমানে জয়ার হাতে রয়েছে কৌশিক গাঙ্গুলির বিজয়া, শিবপ্রসাদ-নন্দিতা রায়ের কণ্ঠ, নুরুল আলম আতিকের পেয়ারার সুবাস, মাহমুদ দিদারের বিউটি সার্কাস ছবিগুলো। এখন শুটিং করেছেন সায়ন্তন মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ‘ঝরা পালক’ ছবিতে। ছবিটিতে জীবনানন্দ দাশের স্ত্রী লাবণ্যের চরিত্রে দেখা যাবে তাকে।