কিশোর চালকে বাড়ছে দুর্ঘটনা নির্বিকার প্রশাসন|112193|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
কিশোর চালকে বাড়ছে দুর্ঘটনা নির্বিকার প্রশাসন
মোস্তাফিজ আমিন, ভৈরব

কিশোর চালকে বাড়ছে দুর্ঘটনা নির্বিকার প্রশাসন

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে শিশু-কিশোর চালকরা চালাচ্ছে রিচার্জেবল অটোরিকশা বা ইজিবাইক। এতে করে প্রতিদিনই ঘটছে দুর্ঘটনা। ঝরে যাচ্ছে মূল্যবান প্রাণ। আর দুর্ঘটনার ক্ষত নিয়ে কষ্টের জীবন কাটাচ্ছে বেঁচে যাওয়া যাত্রীরা। তবে অনভিজ্ঞ ও অপ্রাপ্তবয়স্ক চালকরা সড়ক-মহাসড়কে অটোরিকশা নিয়ে দাপিয়ে বেড়ালেও স্থানীয় প্রশাসন যেন নির্বিকার।

জানা গেছে, এক শ্রেণির অতি মুনাফালোভী পরিবহন মালিক দৈনিক ৫০ থেকে ১০০ টাকা মজুরিতে গরিব পরিবারগুলোর শিশু-কিশোরদের হাতে তুলে দিচ্ছেন ইজিবাইকের চাবি। ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, ভৈরব-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়ক এবং প্রায় ১০টিরও বেশি উপজেলা সংযোগ সড়কসহ ভৈরবের অলিগলিতে প্রতিদিন শত শত ইজিবাইক চলাচল করে। তবে মহাসড়কে এ ধরনের যানচলাচল সরকারিভাবে নিষিদ্ধ হলেও প্রশাসনের খামখেয়ালিপনায় আইনটির প্রয়োগ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন দুর্ঘটনার শিকার ব্যক্তি ও তাদের স্বজনরা। নিষিদ্ধ থাকা সত্ত্বেও মহাসড়কে কিছু কিছু ইজিবাইক চলাচল করছে এবং কিশোর চালকরা সেগুলো চালাচ্ছেÑ এ কথা স্বীকার করেছেন ভৈরব হাইওয়ে থানার ওসি মো. তরিকুল ইসলাম। তিনি জানান, এসব গাড়িসহ চালকদের প্রায়ই আটক করে জরিমানা করা হচ্ছে। পাশাপাশি চলছে সচেতনতামূলক কার্যক্রম। এ বিষয়ে ভৈরব পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ দেশ রূপান্তরকে বলেন, সড়ক-মহাসড়কসহ পৌর এলাকার অলিগলিতে অপ্রাপ্তবয়স্ক চালকরা যান চালনা করছে এবং এসব বন্ধে তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।