সিরিজ জয়ের ম্যাচে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ|112482|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৬:৪৮
সিরিজ জয়ের ম্যাচে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ
অনলাইন ডেস্ক

সিরিজ জয়ের ম্যাচে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

ছবি: নাজমুল হক বাপ্পি

টস ভাগ্যটা বরাবরই ভালো সাকিব আল হাসানের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টুয়েন্টিতে ভাগ্য পরীক্ষায় হাসলেন বাংলাদেশ অধিনায়কই। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল ৫টায় মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ম্যাচ। প্রথম দুই ম্যাচ শেষে সিরেজে ১-১ সমতা। দুই দলের সামনেই তাই সিরিজ জয়ের হাতছানি। যে দল জিতবে, তারাই পাবে ট্রফি।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে একটি পরিবর্তন এনেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ড্যারেন ব্র্যাভোর জায়গায় একাদশে সুযোগ পেয়েছেন শেরফান রাদারফোর্ড। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই অভিষেক হতে যাচ্ছে ২০ বছর বয়সীর।

ম্যাচটির আগে উজ্জীবিত স্বাগতিক বাংলাদেশ। সিলেটে প্রথম টি-টুয়েন্টিতে ৮ উইকেটে হেরে সিরিজে পিছিয়ে পড়েছিল তারা। তাতে খেই হারায়নি। গত বৃহস্পতিবার মিরপুরে দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৬ রানের দাপুটে জয়ে সিরিজে ফেরায় ১-১ সমতা।

এ ম্যাচে জিতলে দারুণ এক ইতিহাস গড়বে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটের পূর্ণাঙ্গ সিরিজের সবকটি শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়বে তারা।

গত দশ বছরে ১৪টি পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে দুইবার সুযোগ এলেও তিন ফরম্যাটে সিরিজ জয়ের কৃতিত্ব একবারও দেখাতে পারেনি টাইগাররা। ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ জিতলেও হারতে হয় টি-টুয়েন্টিতে। সুযোগ এসেছিল ২০১৫ সালেও। ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশড করার পর টি-টুয়েন্টিতেও জিতেছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু হেরে যেতে হয়েছিল টেস্ট সিরিজে।

এই অপূর্ণতা ঘুচানোর সুবর্ণ সুযোগ এবার। ক্যারিবীয়দের তৃতীয় ও শেষ টি-টুয়েন্টিতে হারাতে পারলেও পূর্ণাঙ্গ সিরিজ জয়ের আনন্দে ভাসবে বাংলাদেশ। জয়ের রঙে রাঙানো হবে বছরে নিজেদের শেষ ম্যাচটাও।

আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য সব হারানোর পর কিছু নিয়ে ফেরার সুযোগ। টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজে হারের পর অন্তত একটা ট্রফি পেতে হলে এ ম্যাচে জিততে হবে সফরকারীদের। কাজটি অবশ্য সহজ হবে না তাদের জন্য। টাইগারদের সঙ্গে মিরপুরের গ্যালারিও যে বড় প্রতিপক্ষ তাদের।

বাংলাদেশ একাদশ:

তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান (অধি.), মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ, আরিফুল হক, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মেহেদী হাসান মিরাজ, আবু হায়দার রনি ও মোস্তাফিজুর রহমান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ:

এভিন লুইস, শাই হোপ (উইকেটরক্ষক), নিকোলাস পুরান, শিমরন হেটমায়ার, শেরফান রাদারফোর্ড, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট (অধি.), রভম্যান পাওয়েল, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন, কিমো পল, শেলডন কটরেল ও ওসানে থমাস।