লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড চায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার দাবি |112731|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২২:৪১
লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড চায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার দাবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড চায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার দাবি

সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তোলা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির দাবির মধ্যে এবার একই দাবি করলেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচটি ইমাম।

রোববার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের কাছে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার দাবি জানান তিনি।

এইচটি ইমাম বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট ২০০১ সালের স্টাইলে সংখ্যালঘু নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে।  দেশের বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে ভয়ভীতি সৃষ্টি করা হচ্ছে এবং তাদের ওপর হামলা করা হচ্ছে বলে আমাদের কাছে রিপোর্ট আসছে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের কাছে এই ধরনের হামলা ও সহিংসতায় জড়িত বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি।

নির্বাচন ঘিরে বিএনপি-জামায়াত জোট চরমপন্থা বেছে নিতে পারে—   এমন শঙ্কা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম আরো বলেন, আমাদের প্রতিপক্ষ শুধু বিএনপিকে বলছি না। তাদের সঙ্গে জামায়াত, যুদ্ধাপরাধী ও বাংলা ভাইয়ের শিষ্যরা জুটেছে। একসঙ্গে তারা চরমপন্থা বেছে নিতে পারে। সেজন্য আমাদের সবসময় সতর্ক থাকতে হবে।

‘নীলনকশা’ অনুযায়ী বিএনপি-জামায়াত-ঐক্যফ্রন্ট সংঘর্ষের পথ বেছে নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান।

 তিনি বলেন, তারা গণতান্ত্রিক রীতিনীতি অনুযায়ী নির্বাচনের মাঠে না থেকে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও হামলা পরিচালনা করছে। আওয়ামী লীগসহ সব গণতান্ত্রিক দলের ও জোটের অফিস ভাঙচুর, মিছিলে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করছে।  আবার নিজেরাই সহিংসতা সৃষ্টি করে নির্বাচন কমিশনে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করছে।

আওয়ামী লীগের ওপর হামলার পরিসংখ্যান তুলে ধরে এইচটি ইমাম বলেন, নির্বাচনী প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসী বাহিনীর হাতে আওয়ামী লীগের পাঁচ নেতাকর্মী নিহত এবং আড়াইশ’র বেশি নেতাকর্মী, সমর্থক গুরুতরভাবে আহত হয়েছে।

 শত শত নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর হয়েছে, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বাড়ি ও দোকানপাটে হামলা হয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, ২৪টি জায়গায় হামলা ও গুলিবর্ষণ করা হয়েছে, ১১টি গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়েছে, দুটি পুলিশ ভ্যানেও হামলা চালানো হয়েছে।  এছাড়া সারাদেশে আওয়ামী লীগের গাড়িবহরে হামলা, পেট্রলবোমা নিক্ষেপসহ নানা নাশকতা চালানো হচ্ছে।

বিএনপি-জামায়াত ২০০১ সালের মতো সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা করেছে বলেও অভিযোগ করেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।