আওয়ামী লীগের ২৩ নেতা যুদ্ধাপরাধে জড়িত : বিএনপি|112819|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
আওয়ামী লীগের ২৩ নেতা যুদ্ধাপরাধে জড়িত : বিএনপি
নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের ২৩ নেতা যুদ্ধাপরাধে জড়িত : বিএনপি

মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দেওয়া দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ২৩ জন নেতা একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে দাবি করেছে বিএনপি। গতকাল রোববার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ দাবি করেন।

রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের ২৩ নেতা যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে জড়িত। এসব নেতা মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হানাদার বাহিনীর সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে। এমন অভিযোগে আওয়ামী লীগ সরকার একডজন ব্যক্তির বিচার করলেও নিজ দলের নেতাদের বিচার করেনি। মুক্তিযুদ্ধের কথিত সপক্ষ শক্তি দাবিদার দলটি নিজ দলে থাকা রাজাকারদের ব্যাপারে একেবারে নীরব।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগে কুখ্যাত রাজাকার, আলবদর, আলশামস, গণহত্যকারী, গণধর্ষণকারী, অগ্নিসংযোগকারীসহ অসংখ্য ব্যক্তি রয়েছে, যারা স্বাধীনতাযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধে লিপ্ত ছিল। এই ব্যক্তিরাসহ তাদের সন্তান-সন্ততি এখন আওয়ামী লীগের বড় নেতা বা তাদের টিকিটে নির্বাচন করছেন। কিন্তু তারা রয়েছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। রিজভী বলেন, জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত কুৎসা, ঘৃণ্য অপপ্রচারের ধারাবাহিকতা এখনো অব্যাহত রেখেছে সরকার। আইএসআই নাকি বিএনপির মনোনয়নে ভূমিকা রেখেছে। এটি ডাহা মিথ্যাই নয়, নোংরা অপপ্রচারও।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনি বাংলাদেশ ব্যাংক লুটের কথা তো বললেন না? এটা কে লুট করেছে? সব ব্যাংকগুলো লুটপাট করে খালি করেছে কারা? শেয়ারবাজার লুট করেছে কারা? আপনার অর্থমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছেনÑ ‘এই সরকারের আমলে পুকুরচুরি নয়, সাগর চুরি হয়েছে।’ বিভিন্ন গণমাধ্যমে দেশ থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচারের খবর প্রকাশিত হয়েছে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে ধানের শীষের প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের ওপর হামলা হচ্ছে এমন অভিযোগ করে রিজভী বলেন, একতরফা নির্বাচন করতেই আওয়ামী লীগ আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে বিএনপির প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিল করছে।