logo
আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
হ্যাটট্রিক চান সাহারা খাতুন মাঠে নেই মাহমুদ
তামজিদ হাসান

হ্যাটট্রিক চান সাহারা খাতুন মাঠে নেই মাহমুদ

ঢাকা-১৮ আসনে নৌকা প্রতীকের জোর প্রচার চালছে। তবে ধানের শীষের প্রচারের ছিটেফোঁটা নেই। আসনটিতে পরপর দুবার নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন। এবারও তিনি জিতে হ্যাটট্রিক সাংসদ হতে চান। ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ধানের শীষের শহীদউদ্দিন মাহমুদ দৃশ্যত প্রচারে নেই। ফলে নির্বাচনের মাঠ অতটা প্রতিদ্বন্দ্বিপূর্ণ নয় বলে ভোটাররা জানিয়েছেন।

এই আসনে প্রচারে কিছুটা সক্রিয় ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) আম প্রতীকের মাসুম বিল্লাহ। ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) প্রার্থী টেলিভিশন প্রতীকের আতিকুর রহমান নাজিম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হাতপাখা প্রতীকের আলহাজ আনোয়ার হোসেন।

ঢাকা-১৮ আসনটি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ১, ১৭, ৪৩, ৪৪, ৪৫, ৪৬, ৪৭, ৪৮, ৪৯, ৫০, ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪ নম্বর ওয়ার্ড এবং উত্তরখান, দক্ষিণখান, খিলক্ষেত, তুরাগসহ উত্তরা এলাকা নিয়ে গঠিত। মোট ভোটার ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৭১৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৮৬ হাজার ১৫৮ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৬৯ হাজার ৫৫৫ জন।

গত সোমবার বিমানবন্দর, খিলক্ষেত ও উত্তরা ৫, ৬, ৭ এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কোথাও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শহীদউদ্দিন মাহমুদ স্বপনের কোনো পোস্টার-ব্যানার নেই। এমনকি প্রচার চালাতেও দেখা যায়নি তার কোনো কর্মী-সমর্থককে। তবে এ সময় চোখে পড়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ আনোয়ার হোসেনের দুয়েকটি মিছিল ও লিফলেট বিতরণ কর্মসূচি।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের হয়ে বিএনপি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও এই আসনে প্রচারে ধানের শীষের প্রার্থী পিছিয়ে রয়েছেন বলে দাবি করেছেন স্থানীয় ভোটাররা। তবে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমর্থকদের দাবি হামলার ভয়ে মাঠে নামতে পারছেন না তারা।

জানতে চাইলে তুরাগ থানার শুক্রভাঙ্গা এলাকার ভোটার নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘রাস্তার মোড়ে মোড়ে ঝুলছে সাহারা খাতুনের পোস্টার। বিএনপি প্রার্থীর নাম শুনিনি এখনো। শুনেছি জেএসডির এক নেতা ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন পেয়েছেন।

উত্তরা এলাকার তরুণ ভোটার রাফিউল ইসলাম দেশ রূপান্তরকে জানান, ‘এ বছর প্রথমবারের মতো জাতীয় নির্বাচনে ভোট দেব। পুরো এলাকাজুড়েই আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাহারা খাতুনের প্রচার চলছে। তবে নতুন ভোটার হিসেবে আমার একটাই প্রত্যাশাÑ যে সরকার ক্ষমতায় আসুক না কেন তারা যেন দেশ থেকে বেকারত্ব সমস্যা দূর করেন।’

উত্তরখানের কাঁচাবাজারের দোকানি হানিফ বলেন, ‘বিগত সময়ে এই এলাকার অনেক উন্নয়ন হয়েছে। আগে একটু বৃষ্টি হলেই এই এলাকার সড়কগুলোতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হতো। এখন সেটি হয় না, কারণ বড় বড় ড্রেন তৈরি করে উঁচু রাস্তা করা হয়েছে। তবে এ আসনের প্রার্থী কে আমি জানি না। কারো প্রচার দেখতে পারছি না এখনো।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী শহীদউদ্দিন মাহমুদ স্বপনের মিডিয়া সেলের দায়িত্বরত ফিরোজ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘হামলা-মামলার ভয়ে বিএনপির কোনো নেতাকর্মী গণসংযোগে অংশগ্রহণ করতে পারছে না। ধানের শীষের পোস্টার লাগানোর পর সেগুলো ছিঁড়ে ফেলছে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা। আপাতত জেএসডির কেন্দ্রীয় নেতা ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের নিয়ে গণসংযোগ করছেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী।’